পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/৩৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ পাশে বাধা এই কঠিন শৃঙ্খল ভাঙবার শক্তি অতি প্রাজ প্রবীণের হিসাবী বুদ্ধির মধ্যে নেই, এ শক্তি আছে শুধু ধোবনের প্রাণ-চঞ্চল হৃদয়ের মধ্যে। এই নিঃসংশয় আত্মবিশ্বাসে আজ তাকে প্রতিষ্ঠিত হতেই হবে । এতদিন বিদেশীয় বণিক-রাজশক্তির কোন চিন্তাই ছিল না, বৃদ্ধের রাজনীতিচর্চাকে খেলাচ্ছলেই গ্রহণ করে এসেছিল, কিন্তু এখন তার আর খেলার অবকাশ নেই। দিকে দিকে এ চিহ্ন কি আপনাদের চোখে পড়েনি ? যদি না পড়ে থাকে চোখ মেলে চেয়ে দেখতে বলি। রাজশক্তি আজ ব্যাকুল এবং অচির-ভবিষ্যতে এই অন্ধ-ব্যাকুলতাক্ষ দেশ ছেয়ে যাবে-এ সত্যও আজ আপনাদের সমস্ত হৃদয় দিয়ে উপলব্ধি করতে বলি। আরও বলি, সেদিন যেন এই সত্যোপলব্ধির অৰমাননা না ঘটে ! এখানে একটা কথা বলে রাখি। কারণ, সন্দেহ হতে পারে, সৰ্ব্বদেশেই ত রাজনীতিব পরিচালনার ভার বুদ্ধণের স্বন্ধে ন্যস্ত থাকে, কিন্তু এখানে তার অন্তথা হৰে কেন ? অন্তথা এখানেও হবে না, একদিন তাদের পরেই রাজ্যশাসনের দায়িত্ব পড়বে। কিন্তু সেদিন আজ নয়। এখনও সে এসে পৌছয়নি। কারণ, দেশ শাসন করা ও স্বাধীন করা এক বস্তু নয় । এ-কথা মনে রাখা একান্ত প্রয়োজন যে, রাজনীতি পরিচালনা একটা পেশা । যেমন ডাক্তারি, ওকালতি, প্রফেসারি,— এমনি । অন্যান্ত সমূদয় বিদ্যার মত একেও শিক্ষা করতে হয়, আয়ত্ত করতে সময় লাগে । তর্কের মার-প্যাচ, কথা-কাটাকাটির লড়াই, আইনের ফাক খুজে কড়া করে দুকথা শুনিয়ে দেওয়া,—আবার যথাসময়ে আত্মসংবরণ ও বিনীত ভাষণ,— এ-সকল কঠিন ব্যাপার, এবং বয়স ছাড়া এতে পারদর্শিতা জন্মে না। এরই নাম পলিটিক্স। স্বাধীন দেশে এর থেকে জীবিকা-নিৰ্ব্বাহ চলে । কিন্তু পরাধীন দেশে সে ব্যবস্থা নয় । সেখানে দেশের মুক্তি অর্জন-পথে পদে পদে আপনাকে বঞ্চিত করে চলতে হয় । এ তার পেশা নয়, এ তার ধৰ্ম্ম । তাই এই পরম ত্যাগের ব্ৰত শুধু যৌবনই গ্রহণ করতে পারে। এ তার স্বাধিকার চর্চ, অনধিকার-চর্চা নয় বলেই রাজশক্তি একে ভয়ের চক্ষে দেখতে আরম্ভ করেছে। এ-ই স্বাভাবিক, এবং এর গতিপথে বাধার অবধি থাকবে না, এ-ও তেমনি স্বাভাবিক । কিন্তু এই সত্যটাকে ক্ষোভের সঙ্গে নয়, আনন্দের সঙ্গেই মেনে নিয়ে অগ্রসর হতে জাজ আপনাদের আমি আহবান করি । শব্দের ঘটায় ও বাক্যের ছটায় উত্তেজনার স্বষ্টি করতে আমি অপারগ। শাস্তুসমাহিত চিত্তে সত্যোপলব্ধি করতেই আমি অনুরোধ করি। আমরা আত্মবিশ্বত জাতি, আমাদের এই ছিল, এই ছিল, এই ছিল এবং এই আছে, এই আছে, এই

  • 8३