পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/৩৬৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


वृंख्न ८७चांठ्यांभं কিন্তু অনিলবরণ বলিয়াছেন, আস্থাহীন হইলে চলিবে না। আপাতদৃষ্টিতে এই প্রথায়’ষত ছেলেমামুৰী দেখাক, যুক্তি স্বত উন্ট কথাই বলুক, তথাপি বিশ্বাস করিতে হইবে । এক বৎসরে Dominion Status অবগুম্ভাবী ! হইবেই হইবে। যদি না হয় ? সে লোকের অপরাধ, প্রোগ্রামের নয়। এবং তখন অনায়াসে বলা চলিবে, এত সহজ কৰ্ম্ম-পদ্ধতি যে-দেশের লোক নিষ্ঠার সহিত গ্রহণ করিয়া সফল করিতে পারিল না, তাহাজের দিয়া কোনও কালেই কিছুই হইবে না। আসল জিনিষ বিশ্বাস ও নিষ্ঠ। একটার যখন সুবিধা হইল না, তখন আর একট লওয়া কৰ্ত্তব্য , এমনি করিয়া চেষ্টা করিতে করিতেই একদিন খাটি প্রোগ্রামটি ধরা পড়িবে। পড়িবেই পড়িবে। জয় হোক আনিলবরণের ! কত সস্তায় স্বরাজের রাস্তা বাংলে দিলেন । নিখিল-ভারত কাটুনি-সঙ্ঘ খবর দিতেছেন, বিশ লাখ টাকার চরকা কিনিয়া বাইশ লাখ টাকার খাদি প্রস্তুত হইয়াছে। উৎসব লাগিয়া গেল, সবাই কহিল—আর চিত্ত৷ নাই, বিদেশী কাপড় দূর হইল বলিয়া। কলিকাতার বড় কংগ্রেস আসন্ন-প্রায় ; সুভাষচন্দ্র বলিলেন, খবরদার । কলের তৈরী দিশী একগাছি সুতাও যেন একজিবিশনে না ঢোকে। এ ঢুকিলে আর উনি ঢুকিবেন না। 萤 নলিনীরঞ্জন বিষয়ী মানুষ, কত ধানে কত চাল হয় খবর রাখা তার পেশা, কপালে চোখ তুলিয়া বলিলেন, সে কি কথা । বিদেশী কাপড় বয়কট করার ষে প্রতিজ্ঞ করিয়াছ ! তোমার এই বাইশ লাখ দিয়া সত্তর-আশি ক্রোড়ের ধাক্কা সামলাইবে কেন ? সেইন-গোপ্তা সাহেব বীরপে বলিলেন, আমরা ঐ ধদর এক-শ টুকরা করিয়া ংটি পরিব । নলিনীরঞ্জন কহিলেন, সে জানি, কিন্তু এক-শ টুকরা কেন, উহার একগাছি করিয়া স্থত ভাগ করিয়া দিলেও ষে ভাগে কুলাইবে না। সুভাষ বলিলেন, বস্ত্র বয়কট পরে হুইবে, আপাততঃ মহাত্মাঙ্গীর বয়কট সহিবে না । কিরণশঙ্কর কছিলেন, ঠিক, ঠিক । মহাত্মা আসিলেন, লোকমুখে খবর লইয়া দেশে ফিরিয়া certificate পাঠাইৱা দিলেন, ‘ফিলিস সরকাস’ মঙ্গ জমে নাই। নেতার টু শব্দটি করিলেন না, পাছে রাগ করিয়া তিনি স্বরাজের চাবি-কাঠিটি wootwo geسRه د