পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/৫৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
ষােড়শী

 ষােড়শী। সত্যি বই কি ভাই।

 ভৃত্য। মা, মেঘ যে বেড়েই আসচে ?

 হৈম। এই যে উঠি বাবা। অনেক বাচালতা করে গেলাম দিদি, মাপ করাে।

 নির্ম্মল। হৈমকে যে চিঠিখানা লিখেছিলেন, তার হাতে দিলে সময়ও বাঁচত, খরচও বাঁচত।

 ষােড়শী। (হাসিয়া) না দিলেও বাঁচবে। হয়ত আর তার প্রয়ােজনই হবে না।

 নির্ম্মল। ঈশ্বর করুন নাই যেন হয়, কিন্তু হলে আপনার প্রবাসী ভক্ত দু’টিকে বিস্মৃত হবেন না।

 হৈম। আসি দিদি। (পদধূলি লইয়া উঠিয়া দাড়াইল) তােমার মুখের পানে চেয়ে আজ কত-কি যেন মনে হচ্চে। দিদি ! মনে হচ্ছে, এমন যেন তােমাকে আর কখনো দেখিনি—যেন সহসা কোথায় কত দূরেই চলে গিয়েছো।

 নির্ম্মল। নমস্কার। প্রয়ােজনে যেন ডাক পাই।

[ সকলের প্রস্থান ]
 

 ষােড়শী। হৈম, তুমি যেন আজ আমার কত যুগের চোখের ঠুলি খুলে দিয়ে গেলে বােন।—কে?

[ সাগরের প্রবেশ ]

 সাগর। আমি সাগর।

 ষােড়শী। তােদের আর সবাই ? কাল যারা দল বেঁধে এসেছিল ?

 সাগর। আজও তারা তেমনি দল বেঁধেই গেছে হুজুরের কাছারিবাড়িতে। আর বােধ হয় তােমারই বিরুদ্ধে-

 ষােড়শী। বলিস কি সাগর ? আমারই বিরুদ্ধে ?

 সাগর। আশ্চর্য্য হবার ত কিছু নেই মা! সর্বপ্রকার আপদে বিপদে চিরকাল তােমার কাছে এসে দাড়ানই সকলের অভ্যাস। প্রথমটা সেই অভ্যাসটাই বােধ হয়। তারা কাটিয়ে উঠতে পারেনি। কিন্তু আজ জমিদারের একটা চোখ-রাঙানিতেই তাদের হুস হয়েছে।

 ষােড়শী। ভালাে। কিন্তু সভাটা যে শুনেছিলাম মন্দিরে হবার কথা ছিল?

 সাগর। কথাও ছিল, হুজুরের ভােজপুরীগুলোর ইচ্ছেও ছিল, কিন্তু গ্রামের কেউ রাজি হলেন না। তাঁরা ত এদিককার মানুষ—আমাদের খুড়াে-ভাইপােকে হয়ত চেনেন।

 ষােড়শী। কি স্থির হ’লো সভাতে ?

৪৫