পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/১৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


less পর্য্যন্ত তাহার অধিগত। তাহার মুখে শুনিলে दछूजिक তরঙ্গ-প্রবাহের জ্ঞান মার্কোনীর অপেক্ষ নিতান্ত কম বলিয়া সন্দেহ হয় না। কটিনেনটাল গ্রন্থকারদের নাম রাখালের কণ্ঠস্থ—কে কয়টা বই লিথিয়াছেন সে অনর্গল বলিতে পারে। হিউমের সহিত লকের গরমিল কতটুকু এবং স্পিনোজার সঙ্গে দেকার্তের আসল মিল কোনখানে এবং ভারতীয় দর্শনের কাছে তাহা কত অকিঞ্চিৎকর, এ-সকল তত্ত্বকথা সে পণ্ডিতের মতই প্রকাশ করে। বুয়ার ওয়ারের সেনাপতি কে কে, রুশ-জাপান যুদ্ধে কিসের জন্য রুশের পরাজয় ঘটিল, আমেরিকানরা কি করিয়া এত টাকা করিল, এ সকল বিবরণ তাহার নখাগ্রে । ভারতীয় মুদ্র-বিনিময়ে বাট্টার হার কি হওয়া উচিত, রিভাসা কাউন্সিল বেচিয়া ভারতের কত টাকা ক্ষতি হইল, গোল্ড স্টাণ্ডার্ড রিজার্ডে কত সোনা আসে এবং কারেন্সি আমানতে কত টাকা থাকা উচিত, এ সম্বন্ধে সে একেবারে নিঃসংশয় । এমন কি, নিউটনের সহিত আইনস্টিনের মতবাদ কতদিনে সামঞ্জস্য লাভ করিবে এ ব্যাপারেও ভবিষ্যদ্বাণী করিতে তাহার বাধে না । শুনিয়া কেহ কেহ হাসে, কেহ বা শ্রদ্ধায় বিগলিত হইয়া যায়। কিন্তু একটা কথা সকলেই অকপটে স্বীকার করে যে, রাখাল পরোপকারী। সাধ্যে কুলাইলে সাহায্য করিতে সে কোথাও পরাস্মুখ হয় না । - বহু-গৃহেই রাখালের অবাধ গতি, অবারিত দ্বার। খাটাইয়া লইতে তাহাকে কেহ ছাড়ে না। যে সব মেয়ের বয়সে বড়, মাঝে মাঝে অমুযোগ করিয়া বলেন, রাখাল, এ তোমার ভারি অন্যায়, এইবার একটা বিয়ে-থা করে সংসারী হও । কতকাল আর এমনভাবে কাটাবে—বয়স তো হোলো। " রাখাল কানে আঙ্গুল দিয়া বলে, আর যা বলেন বলুন, শুধু এই আদেশটি করবেন না। আমি বেশ আছি । w তথাপি আদেশ-উপদেশের কার্পণ্য ঘটে না । যাহারা ততোধিক শুভানুধ্যায়ী তাহার দুখ করিয়া বলেন, ও নাকি আবার কথা শুনবে ! স্বদেশ ও সাহিত্য নিয়েই পাগল। কথা সে না শুনিতে পারে, কিন্তু পাগলামী সারে কি না যাচাই করিয়া আজও কোনও শুভাকাঙ্খী দেখে নাই। কেহ বলে নাই, রাখাল তোমার পাত্রী স্থির করিয়াছি, তোমাকে রাজি হইতে হইবে। এমনি করিয়া রাখালের দিন কাটিতেছিল এবং বয়স বাড়িতেছিল। এই প্রসঙ্গে আর একটা কথা বলা প্রয়োজন। দর্শন-বিজ্ঞানে যাই হোক, সংসারে আপনার বলিতে তাহার যে কোথাও কিছু নাই এবং ভবিষ্যতের পাতেও শূন্ত অঙ্ক দাগ এ খবরটা আর যাহার চোখেই চাপা পডুক, মেয়েদের চোখে যে চাপা পড়ে নাই এ-কথা রাখাল বোঝে। তাই বিবাহের অনুরোধে সে তাহাদের সদিচ্ছা ও সহায়ভূতিটুকুই গ্রহণ করে ; তাহাদের কাজ করে, বেগার খাটে, তার বেশিতে প্রলুদ্ধ לו