পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষের পরিচয় জন্য তিনি অপেক্ষাও করিলেন না, বাহির হইয়া গেলেন। রাখাল জানাল দিয়া মূৰ বাড়াইয়া দেখিল তিনি পায়ে স্থাটিয়া গেলেন, শুধু গলির বাকের কাছে দরওয়ানের মতো কে একজন অপেক্ষা করিতেছিল, সে তাহাকে নিঃশবো অনুসরণ করিল। রাখাল জামা খুলিয়া ফেলিল । তারক প্রশ্ন করিল, বেরুবে না ? না। কিন্তু তুমি ? যাচ্চো আজই বৰ্দ্ধমানে ? না । তুমি কি করে দেখবো—স্বেচ্ছায় না করে জোর করে করাবে। চায়ের কেট্‌লিটা একবার চড়িয়ে দিই—কি বলে ? দাও । কিছু জলখাবার কিনে আনিগে—কি বলে ? রাজি । তাহলে তুমি চড়াও জলট, আমি যাই দোকানে। এই বলিয়া সে কোচার খুটি গায়ে দিয়া চটি পায়ে বাহির হইয়া গেল। গলির মোড়েই খাবারের দোকান, নগদ পয়সার প্রয়োজন হয় না, ধার মেলে । - খাবার খাওয়া শেষ হইল। সন্ধ্যার পর আলো জালিয়া চায়ের পেয়ালা লইয়া দুই বন্ধু টেবিলে বসিল । তারক প্রশ্ন করিল, তার পরে ? রাখাল বলিল, আমার বয়স তখন দশ কি এগারো । বাবা চার-পাচদিন আগে একবেলার কলেরায় মারা গেছেন ; সবাই বললে, বাবুদের মেজ মেয়ে সবিতা বাপের বাড়িতে পূজো দেখতে এসেচে, তুই তাকে গিয়ে ধর । বাবুদের বুড়ে সরকার আমাকে সঙ্গে নিয়ে একেবারে অন্দরে গিয়ে উপস্থিত হ’লো। তিনি পৈটের একধারে বসে কুলোয় করে তিল বাচছিলেন, সরকার বললে, মেজ-মা, ইটি বামুনের ছেলে, তোমার নাম শুনে ভিক্ষে চাইতে এসেচে । হঠাৎ বাপ মারা গেছে—ক্রিসংসারে এমন কেউ নেই যে, এ দায় থেকে ওকে উদ্ধার করে দেয়। শুনে তার চোখ ছল ছল করে এলে, বললেন, তোমার কি আপনার কেউ নেই ? বললুম, মালি আছে, কিন্তু কখনো দেখিনি । জিজ্ঞাসা করলেন, শ্রাদ্ধ করতে কত টাকা লাগবে ? এটা 2 هستند :