পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ ৰাকী দশ নিরানব্বইয়ের ওপরেই শ্রদ্ধা বাঁচিয়ে যদি চলে যেতে পারি, তাতেই আমাদের মতো সামান্য মানুষে ধন্ত হয়ে যাবে। রাখাল তর্ক করিল না—জবাব দিল না। কেবল মনে হইল সহসা সে যেন একটুখানি বিমনা হইয়া গেছে। কি হে, যাবে ? চলো । গিয়ে কি বলবে ? মোটের উপর যা সত্যি তাই । বলবে বিশ্বস্তস্থত্রে খবর পাওয়া গেছে—ইত্যাদি हेउा ि। সেই ভালো । দুই বন্ধু উঠিয়া পড়িল। রাখাল দরজায় তালা বন্ধ করিয়া যুক্তপাণি কপালে ঠেকাইয়া বলিল, দুৰ্গা! দুর্গ ! অত:পর উভয়ে ব্ৰজবাবুর বাটীর উদ্দেশে যাত্রা করিল। তারক হাসিয়া কহিল, আজ কোন কাজই হবে না। নামের মাহাত্মা টের পাবে। wo) পরদিন অপরাহের কাছাকাছি দুই বন্ধু চায়ের সরঞ্জাম সম্মুখে লইয়া টেবিলে আসিয়া বসিল । টি-পটে চায়ের জল তৈরী হইয়া উঠিতে বিলম্ব দেখিয়া রাখাল চামচে ডুবাইয়া ঘন ঘন তাগিদ দিতে লাগিল। তারক কহিল, নামের মাহাত্ম্য দেখলে তো ? রাখাল বলিল, অবিশ্বাস করে মা-দুর্গাকে তুমি খামোক চটিয়ে দিলে বলেই তে৷ যাত্রাট নিষ্ফল হোলো—নইলে হতো না । প্রতিবাদে তারক শুধু হাসিয়া ঘাড় নাড়িল । সত্যই কাল কাজ হয় নাই। ব্ৰজবাৰু বাড়ি ছিলেন না, কোথায় নাকি নিমন্ত্রণ ছিল, এবং মামাবাৰু কিঞ্চিৎ অসুস্থ থাকায় একটু সকাল সকাল আহারাদি সারিয়া শয্যাগ্রহণ করিয়াছিলেন । রাখাল বাটীর মধ্যে দেখা করিতে গেলে, সে যে এখনো উহাদের মনে রাখিয়াছে এই বলিয়া ব্ৰজবাবুর স্ত্রী বিস্ময় প্রকাশ করিয়াছিলেন, এবং "לול