পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/৩৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


विछिब्र ब्लकनांबडी ७३खष चाश्वश्टिब বেতার-প্রতিষ্ঠানের স্নেহাস্পদ বন্ধুদের আমন্ত্রণে বছরে বছরে আমি এই প্রতিষ্ঠানে এসে উপস্থিত হয়েচি। আমার জন্মতিথি উপলক্ষে বন্ধুরা এই আয়োজন প্রতি বৎসরে করে থাকেন। এবারেও তাই ৬২ বৎসর বয়সে পা দিয়ে আমার জন্মতিথি উপলক্ষে সকলের কাছে আশীৰ্ব্বাদ চেয়ে নেবার পূৰ্ব্বে আমার গুরুদেব বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ— যিনি আজ রোগশয্যায়—তাকে প্রণাম করি। এ জগতে সাহিত্য-সাধনায় তার আশীৰ্ব্বাদ, এটি আমার নয়, প্রতি সাহিত্যিকের পরম সম্পদ । সেই আশীৰ্ব্বাদ আমি আজকের দিনে, তিনি শুনতে না পেলেও আমি চেয়ে নিলাম । এখানে যে-সব বন্ধুরা এসে উপস্থিত হয়েচেন, শুধু সাহিত্যের জন্য নয়, পরম্পরের BBB BBBSSSBBBB BBSL BB BBS BBBB BBBD BBBBBB SSS DD তাদের স্নেহ করি, তারা আজ আমাকে আশীৰ্ব্বাদ করবার জন্তে সমবেত হয়েচেন । আপনারা শুনলেন যে, সাহিত্যের মধ্যে দিয়ে যদি আমি বাঙলা দেশকে কিছু দিতে পেরে থাকি, তার জন্তে এবং আমাকে ভালবাসার জন্তে আমার দীর্ঘজীবন র্তারা কামনা করলেন। আজ ৬২ বৎসরের গোডায় ভাবি যে, এই দীর্ঘজীবন সত্যি মানুষের কাম্য কি না। যারা আমার দীর্ঘজীবন আজ কামনা করচেন, তার মধ্যে শুধু একটিমাত্র সাহিত্যিককে বলতে শুনেচি, তিনি হেমেন্দ্র রায়, তিনি আমার সাহিত্যিক দীর্ঘজীবন কামনা করেচেন, কেবলমাত্র জামার দীর্ঘজীবন তিনি কামনা করেননি। এ জিনিসটা আমাকে ভারী আনন্দ দিয়েচে । ই, যদি সাহিত্যিকের মত হয়ে এই বাঙল দেশকে কিছু দিতে পারি, সে শক্তি ভগবান যদি রাখেন এবং তার সঙ্গে যদি দীর্ঘজীবন দেন আপত্তি নেই, কিন্তু সে যদি না থাকে, যদি ব্যাধিগ্রস্ত হয়ে পঙ্গু হয়ে পড়ে থাকতে হয়, তবে সেই জীবন কারুরই কাম্য নয়, বিশেষ করে সাহিত্যিকের ত নয়ই। আপনারা শুনেছিলেন যে, কিছুদিন পূৰ্ব্বে আমি কঠিন রোগগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলাম। সে অবস্থা এখন আর আমার নেই, তাহলেও স্বাস্থ্য একেবারে চিরদিনের মত ভেঙে গেছে এবং আশা করতে পারি না যে, বছরে বছরে এই-সব বেতার-প্রতিষ্ঠানের বন্ধুদের আমন্ত্রণে আসতে পারব। আমার নিজের সাহিত্যসাধনার ব্যাপারে নিজের মুখে কিছু বলা যায় না। শুধু এইটুকুই ইজিতে বলতে পারি যে, অনেক দুঃখের মধ্যে দিয়ে এই সাধনায় ধীরে ধীরে অগ্রসর হয়েচি। কোনদিনই মনে করিনি যে, আমি সাহিত্যিক হবে বা কোন বই আমার কোনদিনই প্রকাশিত হবে। এমন কি, যা লিখেচি তাও সঙ্কোচে, দ্বিধায়, পরের নামে । তার কোনও মূল্য আছে কি না ভাবতে পারিনি। তার পরে দীর্ঘকাল, বোধহয় এমন ১৫১৬ বৎসর সাহিত্যচর্চার ধার দিয়েও যাইনি। ভুলেও মনে হ’তে না যে, আমি কোন ר טיפו 》 -