পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/২৬১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিরাজ-বেী নীলাম্বর কথা কহিল না। আবার তাহার নির্মীলিত চোখের দুই কোণ বাহিয়৷ ফোটা ফোট জল ঝরিয়া পড়িতে লাগিল । বিরাজ উঠিয়া বসিয়া আঁচল দিয় তাহ সযত্নে মুছইয়া দিয়া গঢ়শ্বরে খলিল, ভেব না, মা মরণকালে তোমার হাতে পুটিকে দিয়ে গিয়েছেন, সেই পুটির ভাল হবে বলে যা ভাল বুঝেছ তাই করেছ—স্বৰ্গ থেকে মা আমাদের আশীৰ্ব্বাদ করবেন। তুমি শুধু এখন স্বম্ব হও, ঋণমুক্ত হও—যদি সৰ্ব্বস্ব যায় তাও যাক নীলাম্বর চোখ মুছিতে মুছতে রুদ্ধস্বরে কহিলে, তুই জানিস্ণে বিরাজ, আমি কি করেছি—আমি তোয়— বিরাজ বলিতে দিল না। মুখে হাত চাপা দিয়া বলিয়া উঠিল, সব জানি আমি। আর জানি, না জানি, ভেবে ভেবে তোমাকে আমি রোগ হতে দিতে পারব না, BBS BBB BBS BSB BB BSBB D KBB BBB KgS BB BBBB হও, তার পরে মাথার উপর ভগবান আছেন, পায়ের নীচে আমি আছি । নীলাম্বর দীর্ঘনিশ্বাস ফেলিয়া চুপ করিয়া রহিল। 8 আরও ছয় মাস অতিবাহিত হইয়া গেল। হরিমতির বিবাহের পূৰ্ব্বেই ছোট ভাই বিষয়-সম্পত্তি ভাগ করিয়া লইয়াছিল। নীলাম্বরের নিজের ভাগে যাহা পাড়য়ছিল তাহার কিয়দংশ সেই সময়েই বাধা দিয়া অর্থ সংগ্ৰহ করিতে হইয়াছিল—বলা বাহুল্য, পীতাম্বর এক কপদক দিয়াও সাহায্য করে নাই। অবশিষ্ট জমি-জমা যাহা ছিল, তাহাই একটির পর একটি বন্ধক দিয়া নীলাম্বর বিবাহের শর্ত পালন করিয়া ভগিনীপঙর পড়ার খরচ যোগাইতে লাগিল এবং সংসার চালাইতে লাগিল। এইরূপে দিন দিন নিজেকে ক্রমাগত শক্ত করিয়া জড়াইয়া ফেলিতে লাগিল, কিন্তু মমতাবশে কোনমতেই পৈতৃক-সম্পত্তি একেবারে বিক্রয় করিয়া ফেলিতে পারল না। আজ বৈকালে ও-পাড়ার ভোলানাথ মুখুয্যে আসিয়া বাকী স্বদের জন্য কযেকটা কথা কড়া করিয়াই বলিয়া গিয়াছিল, আড়ালে দাড়াইয়া বিরাজ তাঁহা সমস্তই শুনিল এবং নীলাম্বর ঘরে আসিতেই, সে রান্নাঘর হইতে নিঃশব্দে সম্মুখে জাসিয়া দাড়াইল। তাহার মুখের পানে চাহিয়া নীলাম্বর মনে মনে প্রমাদ গনিল। ক্ষোতে অপমানে বিরাজের বুকের ভিতরটা হু হু করিয়া জলিতেছিল ; কিন্তু সে ভাব সে সংযত করিয়া হাত দিয়া খাট দেখাইয়া দিয়া প্রশান্ত-গভীর কণ্ঠে বলিল, ঐখানে ব’ল। নীলাম্বর শয্যার উপর বসিতেই লে নীচে পায়ের কাছে বলিয়া পড়িয়া ৰলিল, ক্ষে আমাকে ঋণমুক্ত কর, না হয় আজ তোমার পা দুয়ে দিব্যি করব। ९¢é