পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/২৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ চাবিদিকের প্রাচীর, সপ্তগ্রামের জানা-অজানা সমাধিস্তৃপ, ঐ পুরাতন বটবৃক্ষ-সমস্ত দপ্তটা তাঙ্গর মনেব মধ্যে উদিত কষ্টবামাত্র তাহার সর্বদেহ কণ্টকিত হইয়া চুল পর্য্যন্ত শিহরিয়া উঠিল । সে অস্ফুটম্বরে ‘মা গো! বলিয। স্তব্ধ হইয়। বসিয়া রহিল। (t দিন-দুই পরে নীলাম্বর বলিল, সুন্দরীকে দেখছি নে কেন বিরাজ ? বিরাজ বলিল, আমি তাকে তাড়িয়ে দিযেচি। নীলাম্বর পরিহাস মনে করিয়া বলিল, বেশ করেচ । বল না কি হয়েচে তার ? বিরাজ বলিল, কি আবার হবে, আমি সত্যি তাকে ছাড়িয়ে দিয়েচি । নীলাম্বর তথাপি কথাটা বিশ্বাস করিতে পারল না। অতিশয় বিস্মিত হইয়া মুখপানে চাহিয়া বলিল, তাকে ছাড়িয়ে দেবে কি করে ? আর সে যত দোধই করুক, কতদিনের পুরনো লোক, তা জান ? কি করেছিল সে ? বিরাজ বলিল, তাল বুঝেচি তাই ছাড়িয়ে দিয়েচি । নীলাম্বর বিরক্ত হইয়া বলিল, কিসে ভাল বুঝলে, তাই জিজ্ঞেস কচ্চি । বিরাজ স্বামীর মনের ভাব বুঝিল । ক্ষণকাল নিঃশব্দে মুখপানে চাহিয়া থাকিয়৷ বলিল, আমি তাল বুঝেচি-ছাড়িয়ে দিয়েচি, তুমি ভাল বুঝ, ফিরিয়ে আন গে। বলিয়া উত্তরের জন্য অপেক্ষা না করিয়া রান্নাঘরে চলিয়া গেল । নীলাম্বর বুঝিল, বিরাজ রাগিয়াছে, আর কোন কথা কহিল না। সে ঘণ্টাখানেক পরে ফিরিয়া আসিয়া রান্নাঘরের দরজার বাহিয়ে দাডাইয়। ধীরে ধীরে বলিল, কিন্তু ছাড়িয়ে যে দিলে, কাজ করবে কে ? এবার বিরাজ মুখ ফিরাইয়া হাসিল। তাহার পর বলিল, তুমি । নীলাম্বর হাসিয়া বলিল, তবে দাও, এটো বাসনগুলো মেজে ধুয়ে আনি । বিরাজ হাতের খুন্তিট কনা করিয়া ফেলিয়া হাত ধুইয়া কাছে আপিয়া পায়ের ধূলা মাথায় লইয়া বলিল, যাও তুমি এখান থেকে। একটা তামাশা করবাব জো নেই—ন্ত হলেই এমন কথা বলে বসবে যে, কানে শুনলে পাপ হয়। নীলাম্বর অপ্রতিভ হইয়। বলিল, এও কানে শুনলে পাপ হয় ? তোর পাপ যে কিসে হয় না, তা ত বুঝিনে বিরাজ ! বিরাজ বলিল, তুমি সব বোঝ । না বুঝলে এত কাজ থাকতে এটো বাসনের কথা তুলতে না—যাও, আর বেলা ক’রো না, স্বান করে এসো—আমার রান্না হয়ে গেছে। নীলাম্বর চৌকাঠের উপর বসিয়া পড়িয়া বলিল, সত্যি কথা বিরাজ, সংসারের কাজকৰ্ম্ম কয়ৰে কে ? 裁*汶