পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/৩৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎসাহিত্য-সংগ্ৰহ ক্ষেত্রমোহন বলিলেন, ত্যাগ কি সাধে করতে পারিনে ভাই, তোমাদের ব্যবহারে পারিনে। তিনি অত্যন্ত ব্যথা পেয়ে বললেন, বাপের বাড়ি চলে যাবো ; তুমি আমনি জবাব দিলে, যাবে ৰাও—জামার ভবানীপুর এখনও হাতছাড়া হয়নি। এই সমস্ত কি ব্যবহার ? ভাই-বোন একেবারে এক ছাচে ঢালা । ষাক, আমি সব ভেস্তে দিয়ে এসেচি, যাওয়া-টাওয়া তার হবে না। তুমি কিন্তু আর খুঁচিয়ে বা ক’রে না। হঠাৎ ঘড়ির দিকে চাহিয়া চমকিয়া উঠিলেন, উঃ-ভারী বেলা হয়ে গেল, এখন চললুম, কাল সকালেই আসবো। ফিরতে উদ্যত হইয়া সহসা গলা খাটো করিয়া কহিলেন, নি-কতক একটু বনিয়ে চল না শৈলেশ । অধ্যাপকের ঘরের মেয়ে, অনাচার সন্থ করতে পারেন না, খানাটানাগুলো দুদিন না-ই খেলে । তাছাড়া এসব ভালও ত নয়—খরচের দিকটাতেই চেয়ে দেখ না । আচ্ছা, চললুম ভাই, এই বলিয়া উত্তরের প্রত্যাশা না করিয়াই কৃতপদে বাহির হইয়া গেলেন। শৈলেশ কিছুক্ষণ ধরিয়া স্তব্ধ হইয়া দাড়াইরা রহিল। ক্ষেত্রমোহন কখন আসিল, কি বলিয়া, কি করিয়া হঠাৎ সমস্ত ব্যাপার উণ্টাইয়া দিয়া গেল, সে ভাবিয়াই পাইল না। বেহারা জাসিয়া সংবাদ দিল খাবার দেওয়া হইয়াছে। উত্তরের ঢাকা বারান্দায় ৰখানিয়মে আসন পাতিয়া ঠাই করা। প্রতিদিনের মত বহুবিধ অল্প-ব্যঞ্জন পরিবেশন ক্ষরিয়া অদূরে উষা বসিয়া আছে, শৈলেশ ঘাড় গুজিয়া খাইতে বসিয়া গেল। অনেকবার তাহার ইচ্ছা হইল, ক্ষেত্রর কথাটা মুখোমুখি যাচাই করিয়া লইয়া সমথোচিত মিষ্ট দুটো কথা বলিয়া যায়, কিন্তু কিছুতেই মুখ তুলিতে পারিল না, কিছুতেই এ কথা জিজ্ঞাসা করিতে পারিল না। এমন কি লোমেনের ছুতা করিয়াও আলোচনা আরম্ভ করিতে পারিল না। অবশেষে খাওয়া সমাধা হইলে নিঃশব্দে উঠিয়া চলিয়া গেল । ¥१रै