পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/৩৯৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ বিভা মলিনমূখে কছিল, যদি সত্যই হয়, দাদাকে কি একবার বাচাবার চেষ্টাও করবে না 7 ছেলেট কি চোখের সামনে ভেসেই যাবে ? . ক্ষেত্রমোহন নিশ্বাস ফেলিয়া কহিলেন, কি করতে পারি বল ? বিভা চুপ করিয়৷ রছিল। কেমন করিয়া কি হইতে পারে সে তাহার কি জানে। ক্ষেত্রমোহন সহসা বলিয়া উঠিলেন, সেই পৰ্য্যস্ত ত কখনও যাইনি, আঞ্জ চল না একবার যাই । বিভার বৃকের মধ্যেটা আজ সত্যই কাদিতেছিল, তাই বোধ হয় আজ তথায় মানঅভিমানের স্থান হইল না, সহজেই সম্মত হইয়া বলিল, চল । উমাকে আজ তাহার সঙ্গে লইল না। এই মেয়েটির সম্মুখে লজ্জার মাত্রাট আজ তাহাজের বাড়াইবার প্রবৃত্তি হইল না। মোটর যখন তাহাজের শৈলেশের বাড়ির স্বমুখে আসিয়া থামিল, তখন বেলা দশটা বাজিয়া গেছে। বাহিরের স্বরটা এাজ খোলা, গুরুভাই-যুগল মেঝের উপরে বসিয়া একটা বড় পুটুলি কবিয়া বাধিতেছেন। ক্ষেত্রমোহন জিজ্ঞাসা করিলেন, শৈলেশবাবু বাড়ি আছেন ? তাহারা মুখ তুলিয়া চাছিলেন। একটুখানি চুপ করিয়া থাকিয়া কি ভাবিয়া শেষে উত্তর দিলেন, না, তিনি পরশু গেছেন নবদ্বীপধামে। কবে ফিরবেন ? কাল কিংবা পরশু সকালে । বাবুর ছেলে বাড়িতে আছে ? 姆 তাহারা উভয়েই ঘাড় নাড়িয়া জানাইলেন আছে, এবং তৎক্ষণাৎ কাজে লাগিয়া গেলেন । অতঃপর বাটীর মধ্যে প্রবেশ করিয়া দুজনের একসঙ্গেই চোখে পড়িল, লাইব্রেরিঘরের দ্বারে সেই পুরানো ভারী পর্দাটা আজ আবার ঝুলিতেছে। একটু ফাক করিতেই চোখে পড়িল, পূর্বের আসবাব-পত্র যথাস্থানে সমস্তই ফিরিয়া আসিয়াছে। বিভা কছিল, ওই দুটো লোককে সরিয়ে দিয়ে দাদা জাবার ঘরটায় ঐ ফিরিয়েচেন । এটুকু স্ববুদ্ধিও যে তার আর কখনও হবে আমার আশা ছিল না। কিন্তু বলা তাহার শেষ না হইতেই সহসা পিছনে শব্ব শুনিয়া ফিরিয়া চাহিতেই উভয়ে বিস্ময়ে একেবারে বাকশৃঙ্গ হইয়া গেল। সোমেন বাহিরে কোথাও গিয়াছিল, রবারের একটা বল লুকিতে পৃফিতে আসিতেছে। কোথায় বা মালা, কোথায় বা টিকি, আর কোথায় বা তাহার ব্রহ্মচারীর বেশ । খালি গা, কিন্তু পরনে চমৎকার লালপেড়ে জরি বসানো ধুতি, মাথার চুল বাঙালী ছেলেদের মত পরিপাট ছাটা, পারে বার্নিশ-করা পাম্পস্থ। সে চুটিয়া আসিয়া বিভাকে জড়াইলা ধরিয়া কহিল, মা এলেচেন পিসীমা, রান্নাঘরে রাখচেন, চল। এই বলিয়া সে টানিতে লাগিল । Úyw