পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/১৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গৃহদাহ স্বয়ং গিয়া তাহাকে আপনার বাড়িতে ধরিয়া আনিয়াছে এবং যে কোন ছলে তাহার স্ত্রীকে তাহারই পার্থে আনিয়া দিবার জন্য নিজের পিসিমাকে পর্য্যন্ত পাঠাইয়া দিয়াছে । কস্তা-জামাতার মধ্যে যে কিছুকাল হইতে একটা মনোমালিন্ত চলিয়া আসিতেছিল, দাসীর মুখের এ তথ্যটি তিনি একবারও বিশ্বত হন নাই। অতএব সমস্তই ষে সেই দাম্পত্য-কলহের ফল, আজ এই সত্য পরিস্ফুট হওয়ায়, এই অবিশ্রাম বকুনির মধ্যেও তাহার নিরতিশয় আত্মগ্লানির সহিত মনে হইতে লাগিল, ওখানে পৌঁছিয়া সেই সম্পূর্ণ নিরপরাধ ও ভদ্র যুবকের মুখের পানে তিনি চাহিয়া দেখিবেন কি করিয়া ? কিন্তু তাহার কণ্ঠার সর্বদেহের উপর একটা কঠিন নীরবতা স্থির হইয়া বিরাজ করিতে লাগিল । অস্থখটা যে বিশেষ কিছুই নহে, তাহা সেও মনে মনে বুঝিয়াছিল ; শুধু বুঝিতে পারিতেছিল না, স্বরেশ তাহাকে ধরিয়া আনিল কিরূপে স্বামীকে সে এটুকু চিনিয়াছিল। সন্ধ্যা হইয়া গিয়াছে। রাস্তার গ্যাস জলিয়া উঠিয়াছে। • গাড়ি স্বরেশের বাড়ির ফটকের মধ্যে প্রবেশ করিল এবং গাড়ি-বারান্দার অনতিদূরে আসিয়া থামিল। কেদারবাৰু গলা বাড়াইয়া দেখিয়া সহসা উদ্বিগ্ন-স্বরে বলিয়া উঠিলেন, দুখান৷ গাড়ি দাড়িয়ে কেন ? * সঙ্গে সঙ্গেই অচলায় চকিত দৃষ্টি গিয়া তাহার উপরে পড়িল এবং লন্ঠনের আলোকে স্পষ্ট দেখিতে পাইল, সুরেশ একজন প্রবীণ ইংরাজকে সসন্ত্রমে গাড়িতে তুলিয়া দিতেছে এবং আর একজন সাহেবী-পোষাকপরা বাঙালী পার্থে দাড়াইয়া আছে। ইহারা যে ডাক্তার, তাহা উভয়েই চক্ষের পলকে বুঝিতে পারিল। র্তাহার চলিয়া গেলে ইহাদের গাড়ি আসিয়া গাড়ি-বারান্দায় লাগিল। স্বরেশ দাড়াইয়াছিল, কেদারবাৰু চীৎকার করিয়া প্রশ্ন করিলেন, মহিম কেমন আছে স্বরেশ ! আমুখটা কি ? মুরেশ কহিল, ভাল আছে। আস্বন। কোরবাবু অধিকতর বাগ্রকণ্ঠে জিঞ্জলা করিলেন, অস্থখটা কি তাই বল না শুনি ? স্বরেশ কহিল, অমুখের নাম করলে ত আপনি বুঝতে পারবেন না কেদারবাবু! জয়, বুকে একটু সন্ধি বসেচে। কিন্তু আপনি নেমে আশ্বন, ওদের নামতে দিন। কেদারবাৰু নামিবার চেষ্টমাত্র না করিয়া বলিলেন, একটু সর্দি বসেচে, তার চিকিৎসা ত তুমি নিজেই করতে পার। আমি ছেলেমানুষ নই স্বরেশ, ছ'জন ডাক্তার কেন ? সাহেবভাক্তারই বা কিসের জন্তে ? বলিতে বলিতে তাহার গলা কঁাপিতে লাগিল । হুরেশ নিকটে জাগিয়া হাত ধরিয়া উহাকে নামাইয়া বলিল, পিলিমা, অচলাকে ভেতরে নিয়ে যাও, আমি যাচ্ছি। - Sy