পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/২৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিন্দুর ছেলে অন্নপূর্ণ ধমকাইয়া বলিলেন, ভাল চাস ত আর ছোটবোঁ । না হলে কাল তোদের দু'জনকে না বিদেয় করি ত আমার নাম অন্নপূর্ণ নয়, বলিয়া যেমন করিয়া আসিয়াছিলেন, তেমনি করিয়া পা ফেলিয়া বাহির হইয়া গেলেন। মাধব জিজ্ঞাসা করিল, আজ আবার তোমাদের হ’ল কি ? বিন্দু বলিল, দিদি রাগলে ষা হয় তাই। আজ অপরাধের মধ্যে বলেছিলুম, ছেলে-পুলের ঘর, জাতি-টাতিগুলো একটু সাবধান করে রেখে—তাই এত কাও झुंझ् । মাধব বলিল, আর গোলমাল ক’রো না, যাও । বৌঠান যেমন করে পা ফেলে বেড়াচ্ছেন, দাদা এখনি উঠে পড়বেন । বিন্দু অমূল্যকে কোলে তুলিয়া লইয়া রান্নাঘরে চলিয়া গেল । O এক মায়ের দুই ছেলে জননীকে আশ্রয় করিয়া যেমন করিয়া বাড়িয়া উঠিতে থাকে, দুইটি মাতা তেমনি একটিমাত্র সস্তানকে আশ্রয় করিয়া আরো ছয় বৎসর কাটাইয়া দিলেন। অমূল্য এখন বড় হইয়াছে, সে এন্ট-ঙ্গি স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণীতে পড়ে। ঘরে মাস্টার নিযুক্ত আছেন, তিনি সকালবেলা পড়াইয়া যাইবার পর অমূল্য খেলা করিতে বাহির হইয়াছিল। আজ রবিবার, স্কুল ছিল না । অন্নপূর্ণ ঘরে ঢুকিয়া বলিলেন, ছোটবোঁ , কি করি বল ত ? বিন্দু তাহার ঘরের মেঝের উপর আলমারি উজাড় করিয়া অমূল্যর পোষাক বাছিতেছিল, সে কাকার সহিত কোন মক্কেলের বাড়ি নিমন্ত্রণ-রক্ষা করিতে যাইবে। বিন্দু মুখ না তুলিয়া বলিল, কিসের দিদি ? তাহার মেজাজটা অপ্রসন্ন। অন্নপূর্ণ রকমারি পোষাকের বাহার দেখিয়া অবাক হইয়া গিয়াছিলেন, তাই তার মুখের ভাবটা লক্ষ্য করিলেন না, কিছুক্ষণ নিঃশৰে চাহিয়া থাকিয়া জিজ্ঞাসা করিলেন, এ কি সমস্তই অমূল্যর পোষাক নাকি ? বিন্দু বলিল, ই । . অন্নপূর্ণ বলিলেন, কত টাকাই না তুই অপব্যয় করিল। এর একটার দামে গরীব ছেলের সারা বছরের কাপড়-চোপড় হতে পারে। বিন্দু বিরক্ত হইল, কিন্তু সহজভাবে বলিল, তা পারে। কিন্তু গরীবে বড়লোকে একটু তফাত থাকেই, সেজন্য দুঃখ করে কি হবে দিদি ?

ዓ¢