পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/৩৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ বিবাহের সমস্ত পাক-রকম স্থির হইয়া যাইলে বড়বন্ধু একদিন অনুপমাকে বলিলেন, কি লো! বরের স্বখ্যাতি যে গ্রামে ধরে না। অনুপমা মৃদ্ধ হাসিয়া বলিল, যার সতী-সাধী স্ত্রী, জগতে তার সকল মুখের পথই উন্মুক্ত থাকে। তবু ত এখনো বিয়ে হয়নি লো ! বিবাহ আমাদের অনেকদিন হয়েচে, জগৎ জানে না বটে, কিন্তু অন্তরে অন্তরে বহুদিন আমাদের পূর্ণ মিলন হয়ে গিয়েচে । বড়বন্ধু অল্প হাসিল, ওষ্ঠ ঈষৎ কুঞ্চিত করিয়া একটু থামিয়া বলিলেন, এ-কথা আর কোথাও বলিস্নে, আমরা বুড়ে মাগী, আমাদের ত বলা দূরে থাক—এমনধারা শুনলেও লজ্জ করে, সব কথায় তুই যেন থিয়েটারে অ্যাক্ট করতে থাকিস্। এমন করলে লোকে পাগল বলবে যে ! আমি প্রেমে পাগল । তৃতীয় পরিচ্ছেদ বিবাহ আজ ৫ই বৈশাখ । অনুপমার বিবাহ-উৎসবে আজ গ্রামটা তোলপাড় হইতেছে । জগবন্ধুবাবুর বাটতে আজ ভিড় ধরে না। কত লোক যাইতেছে, কত লোক হাকাহাকি করিতেছে। কত খাওয়ান-দাওয়ানর ঘটী, কত বাজনা-বাস্তের ধুম। যত সন্ধ্যা হইয়া আসিতে লাগিল, ধুমধাম তত বাড়িয়া উঠিতে লাগিল, সন্ধ্যা-লগ্নেই বিবাহ, এখনই বড় আসিবে—সকলেই উৎসাহে আগ্রহে হুইয়া আছে ।