পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ হাতের গ্লাডস্টেশন ব্যাগটা নামাইয়া রাখিয়া কছিল, হুঁ, ভাল। কিন্তু কি রকম, এক দাড়িয়ে যে ? অচলা বংঠাকুরাণী এক মুহূর্বে সচল হয়ে অন্তৰ্দ্ধান হলেন কিরূপে ? তার প্রবল বিশ্রালাপ মোড়ের ওপর থেকে যে আমাকে এ-বাড়ির পাত্ত দিলে । বস্তুত, অচলার শেষ কথাটা রাগের মাথায় একটু জোরে বাহির হইয়া পড়িয়াছিল, ঠিক দ্বারের বাহিরেই তাহা সুরেশের কানে গিয়াছিল। স্বরেশ কহিল, দেখলে মহিম, বিজুৰী স্ত্রী-লাভের স্থবিধে কত ? ক’দিনই বা এসেচেন, কিন্তু এর মধ্যেই পাড়াগায়ের প্রেমালাপের ধরণটা পৰ্য্যন্ত এমনি আয়ত্ত করে নিয়েচেন যে, খুত বের করে দেয়, পাড়াগেয়ে মেয়েরও তা সাধ্য নেই । মহিম লজ্জায় আকৃর্ণ রাঙা হইয়া দাড়াইয়া রহিল । সুরেশ ঘরের দিকে চাহিয়া অচলাকে উদ্দেশ করিয়া পুনরায় কহিল, অত্যন্ত অসময়ে এসে রঙ্গভঙ্গ করে দিলুম বৌঠান, মাপ করে । মহিম দাড়িয়ে রইলে যে? বসবার কিছু থাকে ত নিয়ে চল, একটু বসি । ষ্ঠাটতে হাটতে ত পায়ের বাধন ছিড়ে গেছে—ভ্যালা জায়গায় বাড়ি করেছিলে ভাই— চল, চল, কলকাতায় চল । চল, বলিয়া মহিম তাহাকে বাহিরের ঘরে আনিয়া বসাইল । সুরেশ কহিল, বৌঠান কি আমার সামনে বের হবেন না না-কি ? পরদানসিন ? মহিম জবাব দিবার পূর্বেই পাশের দরজা ঠেলিয়া অচলা প্রবেশ করিল। তাহার মুখে কলহের চিহ্নমাত্র নাই, নমস্কার করিয়া প্রসন্নমুখে কহিল, এ যে আশাতীত সৌভাগ্য । কিন্তু এমন অকস্মাৎ যে ? তাহার প্রফুল্ল হাসি-মুখে মুখ-সৌভাগ্যের প্রসন্ন বিকাশ কল্পনা করিয়া স্বরেশের বুকের ভিতরটা ঈর্ষায় যেন জলিয়া উঠিল। হাত তুলিয়া প্রতি-নমস্কার করিয়া বলিল, এখন দেখচি বটে, এমন অকস্মাৎ এসে পড়া উচিত হয়নি । কিন্তু কাওটা fF föās 7 Their first difference. Hi srps ofśrg aềsszą NSVsst চলচে ? কোনটা ? অচলা তেমনি হাসিমুখে কহিল, কোনটা শুনলে আপনি বেশ খুশী হন বলুন ? শেষেরটা ত ? তা হলে আমার তাই বলা উচিত - অতিথিকে মনঃক্ষুন্ন করতে নেই । স্বরেশের মুখ গম্ভীর হইল ; কহিল, কে বললে নেই ? বাড়ির গৃহিণীর সেই ত হ’ল আসল কাজ-সেই ত তার পাকা পরিচয় ? অচলা হাসিতে হাসিতে কহিল, গুহই নেই, তার আবার গৃহিণী ! এই দুঃখীদের কুঁড়ের মধ্যে কি করে আজ আপনার রাত্রি কাটবে, সেই হয়েচে আমার ভাবনা। কিন্তু ধন্য আপনাকে, জেনে-গুনে এ দুঃখ সইতে এসেচেন । Եց