পাতা:শারদোৎসব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১০১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মন্ত্রী। কবি বলেন, ওই ছেলেদের প্রাণের মধ্যেই তো আসল ছুটির চেহারা। তারা কাচাধানের খেতের মতোই নিজে না জেনে, কাউকে না জানিয়ে ছুটির ভিতরেই, ফসলের আয়োজন করছে। রাজা । তা ওই ছেলের দলকে ভালো করে শেখানো হয়েছে ? মন্ত্রী। একেবারেই না । রাজা । কী সর্বনাশ ! তা হলে— মন্ত্রী। কবি বলেন, বুড়োর ছেলেদের যদি শেখাতে যায়, তা হলে তো ছেলেরা পেকে যাবে— ছেলেই থাকবে না। সেইজষ্ঠে ওদের নাট্য শেখানোই হয় নি। কবি বলেন, সহজে খুশি হবার বিদ্যে ওদের কাছ থেকে আমরাই শিখব। রাজা। কিন্তু মন্ত্রী, সহজে খুশি হবার বিদ্যা তো পুরবাসীদের বিদ্যা নয়। এই-সব হালকা, এই-সব কাচা, এই-সব না-শেখা ব্যাপারের মূল্য কি তাদের কাছে আছে ? মন্ত্রী। সে কথা আমি কবিকে জিজ্ঞাসা করেছিলুম।— তিনি বললেন, ওজন যার কিছু নেই তার আবার মূল্য কিসের ? হেমস্তের পাকা ধানেরই মূল্য আছে, তাদ্রের কাচ খেতের আবার মূল্য কী । একটুখানি হাসি, একটুখানি খুশি, এই হলেই দেনাপাওনা চুকে যাবে । রাজা। আচ্ছা বেশ, গুম্ভ-নিশুম্ভ তা হলে এখন থাকৃ— আসুক ছেলের দল, আমুক সন্ন্যাসীবেশে রাজা । তা হলে কবিকে একবার ডেকে দাও-না, তার সঙ্গে একবার কথা কয়ে निहे । মন্ত্রী। তাকে ডাকব কী মহারাজ, তিনি निरछहे ८य ¢है পালায় সাজছেন । У e )