পাতা:শারদোৎসব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কবার তো বিপদই ঐ । সেইজন্যেই কারও কাছে ঘেঁষি নে। দেখে দাদা, ফঁাস করে দিয়ে না ! ठेांदूद्रमान ভয় নেই তোমার । লক্ষেশ্বর ভয় না থাকলেও তবু ভয় ঘোচে কই । যা হোক ঠাকুর, একা ঠাকুরদাকে নিয়ে অত বড়ো কাজটা চলবে না। আমরা নাহয় তিন জনেই অংশীদার হব । ঠাকুরদা আমাকে ফাকি দিয়ে জিতে নেবে সেটি হচ্ছে না । আচ্ছা ঠাকুর, তবে আমিও তোমার চেলা হতে রাজি হলেম । ঐ-যে বাকে বাকে মানুষ আসছে । ঐ দেখছ না দূরে ? আকাশে যে ধুলো উড়িয়ে দিয়েছে ! সবাই খবর পেয়েছে স্বামী অপূর্বানন্দ এসেছেন। এবার পায়ের ধুলো নিয়ে তোমার পায়ের তেলো হাটু পর্যন্ত খইয়ে দেবে। যাই হোক, তুমি যেরকম আলগা মানুষ দেখছি, সেই কথাটা আর কারও কাছে র্যাস কোরো না— অংশীদার আর বাড়িয়ে না। কিন্তু ঠাকুরদা, লাভ-লোকসানের ঝুকি তোমাকেও নিতে হবে ; অংশীদার হলেই হয় না ; সব কথা ভেবে দেখো । প্রস্থান & ©