পাতা:শিক্ষাবিধায়ক প্রস্তাব.pdf/১৪০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাচনিক শিক্ষা । 为°》 তে ছয় । অজিত কেবল ভগতের বিবরণেই সময় শেষ হইল ; তবু সমুদায় কথার শেষ হইল না। না হউক, যদি কালি শীঘু শীঘু পাঠ সমাপন হয় তবে ব্যঞ্জনের কথা হইবে । কিন্তু কালি কে কি চাউলের ভাত খাও, বাটীতে জিজ্ঞাস করিয়। আসিও। & এবং প্রকার কথোপকথন দ্বার পদার্থবিদ্য। সম্বন্ধীয় বিবিধ বিষয়েরও শিক্ষা প্রদান করা যাইতে পারে । পদার্থবিদ্যা শিক্ষণ করিতে হইলে ষে গণিত এবং ক্ষেত্ৰতত্ত্বে সমধিক বুৎপত্তির প্রয়োজন হয় এই কথা সামান্যতঃ গ্রহণ করা কৰ্ত্তব্য নহে, বিবেচনা করিয়া দেখিলে স্পষ্টই বোধ হইবে যে, পদার্থ-তত্ত্বঘটিত অতি প্রধান ২ নিয়ম গুলি গণিত সাপেক্ষ হয় না । বাল্যাবধি আমরা স্বয স্বভাবাধীন আপন হইতেই পদার্থবিদ্যা শিক্ষ{ করিয়া থাকি এবং প্রকৃতিগত বিশেষ২ ব্যাপীবের পরীক্ষা দ্বারা সাধারণ নিয়ম সমস্তও অনুমান করিয়া লই। বস্তুতঃ শৈশবের প্রথম দুই তিন বৎসরের মধ্যে ষে কত বিষয়ের কেমন সহজে শিক্ষণ হইয়া থাকে তাহ। ভাবিয়। দেখিতে গেলে অশ্চির্য্য জ্ঞান করিতে হয় । একটা ভাষা সমুদায় শিক্ষিত ছইয়। ষায়-কাল, আকাশ, সংখ্য জাতি গ্রুভূতি যে সকল বিষয়ের লক্ষণ নির্দেশ করা এমত কাঠম তৎ, সমুদায়েরও অতি শৈশৰে অৰবোধ হয়, অমেকানেক দ্রব্যের দোষ গুণ কাৰ্য্যোগযোগিজ এবং ব্যবহার প্রণালীও শৈশবে অবগত্ত