পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/১৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শিখ-গুরু বা শিক্ষকগণ Ե-Գ শতদ্রু ও যমুনার মধ্যবর্তী পর্বতশ্রেণীর পাদদেশে দুইটি কি তিনটি দুর্গ নির্মাণ করিয়াছিলেন। নাহনের নিকটবর্তী "কিরদা’ উপত্যকায় পাওনটা’ নামক স্থানেও তাঁহার একটি আডড ছিল ;–বহুকাল পরে, এই স্থানে ইংরেজ ও গুখাদিগের বিষম যুদ্ধ হয়। আনন্দপুর-মাখোয়ালও র্তাহার একটি আশ্রয় স্থান ; তাহার পিতা সেই আশ্রম স্থাপন করিয়াছিলেন।" ১ চামকোঁরে গোবিন্দের আর একটি আশ্রয়স্থান ছিল ;–এই স্থানটি শতদ্রু নদীর নিম্ন-প্রদেশস্থ উপত্যকায় অবস্থিত। তখন এই স্থানটি তেগ বাহাদুরের অতি প্রিয় ছিল। এইরূপে কতকগুলি স্বরক্ষিত দুর্গের অধিপতি হইয়া গোবিন্দ পাশ্ববৰ্ত্তী পার্বত্য অধিবাসিগণের আক্রমণ হইতে নির্বিঘ্নে বাস করিতে লাগিলেন। অতঃপর গোবিন্দ এই সকল অৰ্দ্ধ-স্বাধীন রাজগণের রাজকাৰ্য পরিচালনায় যোগদান করিতে প্রয়াসী হন, এবং এইরূপে সেই সকল আৰ্দ্ধ-স্বাধীন রাজগণের উপর তাহার প্রভাব বিস্তৃত হয় । তিনি মনে মনে বুঝিলেন,—দুর্গম-পৰ্বত-শ্রেণী মধ্যে ক্রমে ক্রমে যে আধিপত্য স্থাপিত হইবে, তাহতেই মোগলরাজ্যের উচ্ছেদ-সাধন অবস্তাভাবী। ধর্মগুরুরূপে গোবিন্দ বহু উপঢৌকন প্রাপ্ত হইতেন ; ভারতবর্ষের সকল স্থান হইতেই শিষ্য সংগৃহীত হইয়াছিল ; গোবিন্দ সামরিক শক্তি প্রতিষ্ঠার উপযোগিতা অনুভব করিয়াছিলেন। বিদ্রোহীদিগের ন্যায় নিরাপদ স্থানে পলায়নের আবশ্বকতা বুঝিতেও তিনি অক্ষম ছিলেন না। প্রধান নেতৃরূপে অথবা অন্য রাজার সাহায্যকল্পে গোবিন্দ যে সকল যুদ্ধকার্যে ব্যাপৃত ছিলেন, তৎসমুদায় তিনি নিজেই বর্ণনা করিয়াছেন।" তাহার বর্ণনাগুলি তাহার কার্যকলাপের জীবন্ত প্রতিকৃতি ; ঐতিহাসিক বিবরণ হিসাবে সেগুলি মূল্যবান এবং অন্যান্য বর্ণনা অপেক্ষ গেবিন্দের সেই বর্ণনাই অধিকতর বিশ্বাসযোগ্য। পুরাতন বন্ধু নাহুনের রাজার সহিত গোবিন্দের প্রথম যুদ্ধ হয়। এই যুদ্ধে হিন্দুদের রাজা নন্থিনের পক্ষ অবলম্বন করিয়াছিলেন। শুনা যায় সেই রাজা একবার গোবিন্দ কর্তৃক বিশেষ ক্ষতিগ্রস্ত ও অপদস্থ হইয়াছিলেন। গোবিন্দের বেতনভোগী কতকগুলি পাঠানসৈন্তও নাহুনের সহিত যোগদান করিয়াছিল । গোবিন্দের নিকট তাঁহাদের বেতন পাওনা ছিল বলিয়া ৭১। মাখোয়ালের অতি সন্নিকটে আনন্দপুর অবস্থিত। মাখোয়ালের নিজ বাসস্থানটিকে গোবিন্দ প্রথমতঃ এই ‘আনন্দপুর’ নামে অভিহিত করেন। ইহাতে বুঝা যায়, তাহার বাসভূমি তৎপিতৃবাসভূমি হইতে সম্পূর্ণ পৃথক, এবং তাহার অর্থ-স্বৰ্থস্থান। এখানে একটি ক্ষুদ্র পাহাড়ের উপর একটি 'চৌকী" আছে। কথিত হয়, গোবিন্দ এই স্থান হইতে সওয়া ক্রোশ দূরবত্তী স্থানে শর নিক্ষেপ করিতেন ; —ইংরাজী গণনায় এই দূরত্বের পরিমাণ প্রায় দুই মাইল ; কারণ পঞ্জাৰীদিগের ক্রোশের পরিমাণ অপেক্ষাকৃত কম। ৭২। দ্বিতীয় গ্রন্থের একটি অংশরূপে এই অংশ –‘বিচিত্র নাটক'—পূর্বেই উদ্ধত হইয়াছে। শুখ। সিংহের গুরবিলাসে গোবিলের এই বিবরণ সম্পূর্ণ সমর্থন করা হইয়াছে। ইহাতে বহু বিস্তৃত বিবরণও দৃষ্ট হয়। এই সময়ের বিবরণ-সম্বলিত ‘বিচিত্র নাটকের কতকগুলি অংশের ম্যালকম অনুবাদ ( Malcolm, "Sketch", p. 58, ) করিয়াছেন ; তাঁহা মিলাইয়া দেখা যাইতে পারে। কিন্তু ম্যালকমের সাধারণ বিবরণ এই ঘটনাবলীর বিপরীত ও তাঁহা ভ্রমমূলক । -