পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/১৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


છેર শিখ-ইতিহাস বহুসংখ্যক শিখগণ পুনরায় সমবেত হইল। কিন্তু ইতিপূর্বেই এ সংসারে গোবিন্দের কার্যের অবসান হইয়া আসিয়াছিল। গোবিন্দ নিজে আর বেশী কিছু লাভ করেন,র্তাহার অদৃষ্টে তাহা ছিল না। এই সময়ে একজন অৰ্দ্ধ-বাবসায়ী ও অৰ্দ্ধ-যোদ্ধা আফগান সামরিক বিভাগের কার্যে নিযুক্ত হইয়াছিলেন ; গোবিন্দ তাহার নিকট হইতে বহুসংখ্যক অশ্ব সংগ্ৰহ করিয়াছিলেন।78 এই সওদাগর বা ভূত্য গুরুকে আপন অভাবের বিষয় জ্ঞাপন করিয়া, প্রাপ্য টাকা পাইবার দাবী করিতে লাগিল। দাবী অনেক টাকার ; স্বতরাং টাকা প্রদানে বিলম্ব হইতে লাগিল ; সেই হেতু অধৈর্য হইয়া, সেই আফগান ব্যবসায়ী গুরুর প্রতি ক্রোধ প্রকাশ করিল । পরিশেষে তাহার অসংযত বাক্যে উত্তেজিত হইয়া, তরবারির এক আঘাতে গোবিন্দ তাহাকে নিহত করেন। হত পাঠানের মৃতদেহ স্থানান্তরিত এবং কবরিত হইল। তাহার পবিীরবর্গ সকলেই অধিনায়কের মৃত্যুতে গোবিন্দের নিকট বহুতার ভাব প্রকাশ করিল। কিন্তু তাহার পুত্ৰগণ মনে মনে পিতার মৃত্যুর প্রতিশোধ কামনা পোষণ করিতে লাগিল, এবং সেই উদ্দেশু সাধনের সুযোগ অন্বেষণে ব্যপৃত রহিল। একদিন তাহার গুপ্তভাবে গুরুর নিভৃত বাসে গমন করিল ; গুরু তখন নিদ্রিত ছিলেন ; তাহার রক্ষকগণ কেহই তথায় ছিল না। সেই অবস্থায় তাহারা তাহার প্রতি সাংঘাতিক অস্ত্রাঘাত করিল। গোবিন্দ উঠিয়া দাড়াইলেন ; হত্যাকারিগণ ধৃত হইল। কিন্তু তাঁহাদের মুখভঙ্গীতে অস্বাভাবিক বিকট হাস্যচ্ছটা বিকাশ পাইল, তাহারা আপনাদিগের দোষ-স্থালনের জন্য চেষ্টা করিতে লাগিল –কৃত কার্যের সার্থকতা সম্পাদনে যুক্তিজাল বিস্তার করিল ; নানা তর্কের অবতারণা করিল। গুরু সকলই শুনিলেন ; তাহাদের পিতার অদৃষ্টের কথা স্মরণ করিলেন ; আপন পিতার মৃত্যুর প্রতিশোধ লওয়া বাকী রহিয়াছে,—তাহাও তাহার মনে উদয় হইল। তিনি যুবকদ্বয়কে বলিলেন,- তাহারা উপযুক্ত কার্যই করিয়াছে। তখন গুরু আজ্ঞা করিলেন, —তাহাদের কোনরূপ শাস্তি বিধান না করিয়া তাহাদিগকে মুক্ত করা হউক।"৯ মুমুধু ৭৮। পূর্বে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দলের আফগান ও তুর্কম্যান সেনানয়কগণ ঘোটক বিক্রয় করিয়া দৈনিক ব্যয়ভার সন্ধুলান করিত। তাহাদের আক্রমণকালের মাঝামাঝি সময়ে, ভারতবর্ষের কতদূরে উপনিবেশ স্থাপিত হইয়াছিল তাহার অনুসরণ করা বড়ই আমোদজনক। লোকপরম্পরায় শুনা যায়,–মানিকালানগর ধ্বংসকারী এবং হরিয়ানার অন্তর্গত ভাতলির প্রতিষ্ঠাতা,—সকলেই ভিন্ন-দেশবাসী ছিলেন। পরে তাহার উপনিবেশ স্থাপন করিয়াছিলেন। তাহারা অবস্থানুসারে ঘোটকাদি বিক্রয় করিয়া জীবিকানির্বাহ করিতেন। বর্তমান সময়ের ভারতীয় যোদ্ধ, আমীর খাও খাদ্যের জন্ত সেইরূপে অশ্ব-বিক্রয় zofoo wins offiosal (“Memoirs of Ameer Khan’, p 16) १० । मूल 鷺 মৃত্যু সম্বন্ধে যাহা বর্ণিত আছে, অন্যান্ত বিবরণেই সেইরূপ বর্ণনা দেখিতে পাওয়া যায়। তবে পুঙ্গানুপুঙ্গ বর্ণনায় একটু আধটু পার্থক্য দেখা যায়। আবার কোন কোন গ্রন্থকার বলেন, হত পাঠানের বিধবা স্ত্রী, স্বামীর মৃত্যুর প্রতিশোধের জন্ত পুত্রদিগকে পুনঃ পুনঃ উত্তেজিত করিতেন । আরও অনেক বর্ণনায়, বিশেষতঃ মুসলমানদিগের বিবরণে, দেখা যায়,-গোবিলের মানসিক বিকার জন্সিয়াছিল। কতকগুলি শিখ গ্রন্থকারও এই বিশ্বাসের সমর্থন করেন। তাহারা