পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/১৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শিখ-গুরু বা শিক্ষকগণ SU গুরু অপুত্রক ছিলেন ; সমবেত শিষ্যগণ র্তাহার মৃত্যুকালে অতি দুঃখিত-ভাবে জিজ্ঞাসা করিল,—কে তাহাদের সত্য-ধর্মের জ্ঞান প্রদান করিবে ? তিনি ইহলোক পরিত্যাগ করিলে, কে তাহাদিগকে বিজয়-পথে পরিচালিত করিবে? তখন গুরু সকলকে আনন্দ করিতে আদেশ দিলেন । তিনি ভাবিলেন,—নির্দিষ্ট দশ জন গুরু তাহাদিগের কর্তব্য পালন করিয়াছেন। কিন্তু তিনি এক্ষণে ঈশ্বর বা অমর গুরুর নিকট “খালসা" সমর্পণ করিয়া যাইতেছেন। গোবিন্দ বলিলেন,—“যে গুরু-সাক্ষাৎকার লাভে ইচ্ছুক, সে যেন নানকের ‘গ্রন্থ অনুসন্ধান করিয়া দেখে। গুরু সর্বদা খালসার সহিত বাস করিবেন। দৃঢ় প্রতিজ্ঞ ও বিশ্বাসী হও ; যেখানেই পাঁচজন শিখ একত্র সমবেত হইবে, সেখানে আমিও উপস্থিত থাকিব ।’৮০ ১৭৭৮ খৃষ্টাব্দে গোদাবরী নদী-তীরে নাদের’ নামক স্থানে গোবিন্দ নিহত হন।* বলেন, গুরু যে যুবকদ্বয়ের পিতৃ-হত্যা করেন, তাহদের প্রতি তিনি অনুগ্রহ প্রকাশ করিয়াছিলেন। তিনি তাহাদিগকে স্বযোগমত প্রতিশোধের আবখ্যকতা বুঝাইয়া দিতেন ; তাহাতে বোধ হইত, যেন তিনি নিজে তাহার জীবন ভারাক্রান্ত বোধ করিয়াছেন, এবং তাঁহাদের হস্তে নিহত হইবার জন্ত প্রস্তুত আছেন। শৈর-উল-মুতাক্ষরণে জানা যায় ( i, 114), গোবিন্দ পুত্ৰশোকে মৃত্যুমুখে পতিত হন। Compare Malcolm, ‘Sketch', p. 70 note, and Elphinstone, ‘History". ii 564). নাদেরের ধর্ম-মন্দিরের পুরোহিতগণ আর এক বিবরণ প্রদান করিয়াছেন। তাহারা বলেন-হর গোবিন্দ পয়েও খার হত্যা বিধান করেন ; পয়েও খার পৌত্রই গোবিন্দকে নিহত করিয়াছিল ; গোবিন্দের সহিত তাহাদের বিবাদের আর কোন কারণ ছিল কি না -তাহ এ বিবরণে জানা যায় না। ৮• । মৃত্যুকালে গুরু যে আদেশ প্রচার করেন, তৎসম্বন্ধে এই বিবরণই প্রচলিত আছে। অনেকের বিশ্বাস,-গোবিন্দ নানক প্রবর্তিত ধর্মের উদ্দেশ্য পুরণ করিয়াছিলেন ; উহ। লোকের উদ্দেষ্ঠোপযোগী হইয়াছিল ; আজকাল উহ শৈব-ধর্মের একটি প্রধান নীতি। গোবিন্দের মাতা ও স্ত্রী, গোবিন্দের মৃত্যুর পরও কয়েক বৎসর জীবিত ছিলেন। মৃত্যুকালে তাহারা বলিয়াছিলেন, সাধারণ খালসা দিগের মধ্যেই গুরু অবস্থিত ; কোন নির্দিষ্ট ব্যক্তি গুরু হইবার উপযুক্ত নহে। এই কারণে শিখদিগের মধ্যে শ্রেষ্ঠতম ধাৰ্মিক ব্যক্তিও সম্মানজনক "গুরু" নামে অভিহিত হন না। 'ভাই' শব্দ তাহাদের সর্বোচ্চ ধর্মোপাধি। চলিত কথায় ইহার অর্থ,-"ভ্রাতা" ; কিন্তু ব্যুৎপত্তিগত অর্থে ইংরাজী বয়োজ্যেষ্ঠ" ( elder ) শব্দের সহিত ইহার সাদৃষ্ঠা আছে।

  • কথিত হয়,- গোবিন্দ ১৭১৮ সম্বতের ‘পো’ মাসে ১৬৬১ খৃষ্টাব্দের শেষভাগে অথবা ১৬৬২ খৃষ্টাবের প্রথম ভাগে জন্মগ্রহণ করেন। কিন্তু তাহার মৃত্যু যে ১৭৬৫ সম্বৎ অথবা ১৭৭৮ খৃষ্টাব্দে হয়, তাহাতে কাহারও মতদ্বৈধ দৃষ্ট হয় না।

নাদেরে একটি বৃহৎ ধৰ্ম-মন্দির আছে। কতকাংশে স্থাবর সম্পত্তির আয়ে, কতকাংশে চাদ সংগ্ৰহ দ্বার, আবার কতকাংশে বা অর্জন-প্রবর্তিত নিয়মানুসারে বাৎসরিক করাদায়ে উহার ব্যয় সন্ধুলান হইত। জমাখরচ এই ধর্মাধিকরণের অধিপতি দেখাইবার জন্ত প্রত্যেক ধাৰ্মিক ব্যক্তির নিকট লোক প্রেরণ করিয়া থাকেন । তাহারা সকলে নিজ নিজ অবস্থানুসারে অর্থ প্রদান করেন। এইরূপে ভূপালের DDD BBBBS BBBBBBB BB BBB BB BBS BB BB BD DD DBB BBBBDSDDD অস্কাদ্য উপহারও প্রদান করিয়া থাকে। রণজিৎ সিংও নাদেরে বহু অর্থ প্রেরণ করিতেন। কিন্তু তৎপ্রদত্ত অর্থে যে ইমারত আরম্ভ হয়, তাহ এখনও সম্পূর্ণ হয় নাই।