পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/১৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শিখদিগের স্বাধীন রাজ্য > 36: তাহারা মনে করিয়াছিল, আমেদ সার সহিত যুদ্ধে নিযুক্ত হওয়ার পূর্বেই, সারহিন্দের শিখ-ভ্রাতৃগণের সহিত মিলিত হওয়া আবশুক ; এবং সমবেত আক্রমণে তত্ৰত্য শাসনকর্তা জিন খ'কে পরাভূত করা তাহদের প্রথম ও প্রধান কর্তব্য। কিন্তু লুধিয়ানার পথ অবলম্বন করিয়া লাহোর হইতে বহু দূরবর্তী স্থানে সৈন্য পরিচালনার আবগুক হওয়ায়, তাহাদের উদ্দেশু সিদ্ধ হইল না। আমেদ সার প্রতিনিধির সহিত যুদ্ধে প্রবৃত্ত হইবার পূর্বেই স্বয়ং আমেদ সা তাহাদিগের গতিরোধ করিলেন। উভয় পক্ষে ঘোরতর যুদ্ধ হইল। এই যুদ্ধে শিখগণ সম্পূর্ণরূপে পরাজিত হইল। মুসলমানগণ যেরূপ দক্ষতার সহিত শিখদিগকে আক্রমণ করিয়াছিল, তদপেক্ষ অধিকতর নিপুণতা সহকারে তাহার শিখদিগের অনুসরণ করিল। অনেকে বলেন,—বার হইতে পনের হাজার শিখ এই যুদ্ধে নিহত হয়। শিখদিগের এই পরাজয় আজিও ‘ঘালুঘর’ ( Ghulos Ghara ) বা ‘ঘোর সঙ্কট' নামে অভিহিত ॥৩১ বন্দিগণের মধ্যে বর্তমান পাতিয়াল বংশের প্রতিষ্ঠাতা আল সিং ছিলেন ;"র্তাহার সৎসাহসিকতায় বীরশ্রেষ্ঠ দুরাণি-রাজ সন্তুষ্ট হইয়াছিলেন। "মালোয়া' এবং ‘মানঝা" "সিং"-দিগের মধ্যে অধিকতর পার্থক্য বিধানের উপযোগিতা বিজেতা আমেদ সা বুঝিতে পারিয়াছিলেন। আমেদ সাৰ্তাহাকে একটি রাজ্যের রাজ -পদে প্রতিষ্ঠিত করিয়া তাহাকে অতি সম্মানের সহিত বিদায় দিলেন । অতঃপর সারহিন্দে গমন করিয়া, সা আপন মিত্র অথবা অধীনস্থ শাসনকর্তা নাজীবুদৗলার সহিত সাক্ষাৎ করিলেন । এই সময়ে কান্দাহারে এক বিদ্রোহের সূত্রপাত হয় । সুতরাং কাবুলী মল্ল নামক একজন হিন্দুকে লাহোরের শাসনকর্তার পদে প্রতিষ্ঠিত করিয়া সেই দূরদেশের বিদ্রোহ দমনকল্পে আবদালী কান্দাহার অভিমুখে যাত্রা করিলেন। তথায় যাইবার পূর্বে প্রথমত: তিনি তাহার প্রতিহিংসা বৃত্তি চরিতার্থ করিলেন ; তাহার অসভ্য কুসংস্কারাচ্ছন্ন অনুচরবর্গের অভীষ্টও সিদ্ধ হইল ; অমৃতসরের নবসংস্কৃত ধর্মমন্দির তাহারা ধ্বংস করিয়া ফেলিল ; মন্দিরাভ্যন্তরে তাহার গো-হত্যা করিল এবং সেই নিহত গাভীগুলিকে পবিত্র সরোবরে নিক্ষেপ করিল ; গাভীদেহে সরোবর পরিপূর্ণ হইল। বহু সংখ্যক ত্রিকোণাকৃতি স্তম্ভ হত শিখদিগের ছিন্নমুণ্ডমালায় ভূধিত হইল ; এবং বিধর্মী শত্রুদিগের রক্তে অপবিত্র ও অস্পৃশু মসজিদ সমূহের প্রাচীর পরিষ্কৃত ও রঞ্জিত হইল ॥৩২ শিখ জাতি তখনও নিরুৎসাহিত হয় নাই। তাহাঁদের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাইতে লাগিল ; জাতীয়তার এক অভিনব উদ্দীপনা তাঁহাদের মনোমধ্যে জাগরুক হইয়াছিল ; ৩১। লুধিয়ান হইতে ২ মাইল দক্ষিণে গুজিয়ওয়াল ও বারনালার মধ্যে এই যুদ্ধ হয়। অনুমান হয়,-মালের কোটলার হিংঘাণ থার উপদেশ অনুসারে সা পরিচালিত হইয়াছিলেন। ব্রাউনের ‘ইণ্ডিয়া ট্রাক্ট", দ্বিতীয় খণ্ড ২৩ পৃষ্ঠা ; ফরষ্টারের ভ্রমণ বৃত্তান্ত, প্রথম খণ্ড ৩১৯ পৃষ্ঠা ; এবং মারে বিরচিত ‘রণজিৎ সিং, ২৩ ও ২৪ পৃষ্ঠা দ্রষ্টব্য। ১৭৬২ খৃষ্টাব্দের ফেব্রুয়ারী মাসে এই যুদ্ধ হয়। •R 1 Compare, Forster, "Travels' i. 320; and “Murray's "Ranjeet Singh," р. 25.