পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/১৭৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Soo শিখ-ইতিহাস মৃত্যুমুখে পতিত হইলেন। অতঃপর জয় সিং বিবিধ হেয় উপায়ে ঝান্দা সিংহকে নিহত করিয়া আপন নীচাশয়তার পরিচয় প্রদান করিলেন। এইরূপে একটি পরাক্রান্ত নরপতিকে অপসারিত করিয়া, জয় সিং কাশিয়া অতি আনন্দ লাভ করিলেন বটে, কিন্তু জায়ুপ্রার্থী স্বত্ব-নিৰ্দ্ধারণ এবং সংকল্প-সাধন-কল্পে একাকী বর্তমান রহিলেন, এবং তিনি তদ্বিষয়ে চেষ্টাম্বিত হইলেন। তখন স্বত্রধরজাতীয় যুশা সিংহকে বিতাড়িত করিবার মানসে ‘কাণিয়া সর্দার জয় সিং, যুশা সিং আলহুওয়ালিয়ার সহিত মিলিত হইয়া এক ষড়যন্ত্র করিতে লাগিলেন। তৎকালে যুশা সিং স্বত্রধরের প্রভাবে আমেদ সার নামমাত্র প্রতিনিধি, কটোচের ঘামান্দ চাদ এবং পার্বত্য প্রদেশের রাজপুত সর্দারগণ র্তাহার অধীনতা স্বীকার করিয়াছিলেন, এবং তাঁহাদের অধিকৃত রাজ্যসমূহ যুশা সিং স্বত্রধরের করদরাজ্য মধ্যে পরিগণিত হইয়াছিল। যাহা হউক, পরিশেষে রামগড়িয়া যুশা সিং পরাজিত হইয়া হরিয়ানার মরু প্রদেশে পলায়ন করিলেন, এবং দক্ষ্যবৃত্তি দ্বারা জীবিকা নির্বাহ করিতে লাগিলেন । এই সময়ে, ১৭৭৪ খৃষ্টাব্যের প্রারম্ভে, কঙেরার মুসলমান শাসনকর্তার মৃত্যু হইল। তিনি স্বাধীনভাবে রাজ্যশাসন করিতে অথবা দিল্লী কিংবা কাবুলের অধীনতা স্বীকার করিতে কৃতসংকল্প হইয়াছিলেন। কিন্তু কটোচের অত্যুখানশীল অধিপতি বহুকালাবধি তাহার দেশ-প্রসিদ্ধ দুর্গ অধিকার করিতে লালায়িত ছিলেন । যাহা হউক, কটোচের নরপতি জয় সিং কাণিয়ার সাহায্য প্রার্থনা করিলেন ; জয় সিংহও সাহায্য দান করিতে সম্মত হইলেন। সমবেত আক্রমণে সেই স্বধৃঢ় দুর্গ অধিকৃত হইল। কিন্তু শিখ-সেনাপতি দুর্গটি নিজে অধিকার করিয়া বসিলেন। পারিপাখিক রাজা ও ঠাকুরদিগের উপর বহুকাল হইতে যুশ সিংহের একাধিপত্য ছিল । জয় সিংহ এক্ষণে রাজকীয় দুর্গ অধিকার করিয়া, যুশা সিংহের আধিপত্য অপহরণ করিতে লাগিলেন।8 পঞ্জাবের দক্ষিণবর্তী প্রদেশসমূহে ‘ভাঙ্গী সম্প্রদায়ের শিখগণ প্রাধান্ত স্থাপন করিয়াছিল। মানকেরা এবং মূলতানের বৃহৎ দুইটি স্বরক্ষিত দুর্গ শিখদিগের অধিকৃত ছিল এবং তাঁহার কালাবা হইতে দক্ষিণ সীমান্ত পর্যন্ত সমগ্র নিম্ন-প্রদেশে বলপূর্বক কর আদায় করিত। মুলতান অধিকারচু্যত হওয়ায়, আফগান-জাতি স্বজাবাদে রাজধানী স্থাপন করিয়াছিল। শিখগণ,সেই স্থান অধিকার করিতে চেষ্টা করে; কিন্তু তাহাদের সে চেষ্টা ব্যর্থ হয়। ১৭৭৩ খৃষ্টাব্দে তাইমুর সা পিতৃসিংহাসন প্রাপ্ত হন। তিনি পরিশেষে সিন্ধুনদ অতিক্রম করিয়া ভারতবর্ষে আগমন করেন। কিন্তু তাহার উদ্ধেশু স্বতন্ত্র ছিল ; সিন্ধুদেশ, ভাওয়ালপুর এবং নিম্ন-পঞ্জাব-প্রদেশ অধিকার করিবার মনস্থ হওয়ায় তিনি লাহোঁর পুনরধিকারের কোন চেষ্টা করিলেন না। ১৭৭৭-৭৮ খৃষ্টাব্দে কাবুল s, ভাওয়ালপুরের রাজার ইতিবৃত্ত এবং শিখদিগের হস্তলিখিত বিবরণ দ্রষ্টব্য। মারে-বিরচিত ‘রণজিৎ সিং' নামক পুস্তকের ৩৮ পৃষ্ঠা এবং ফরষ্টারের ভ্রমণ-বৃত্তাত্ত, প্রথম খণ্ড, ২৮৩,২৮৬,৩৩৬ পৃষ্ঠা। ১৭৭• খৃষ্টাব্দে জাম্বুর রণজিৎ দেওর মৃত্যু হয়। দৈৰ-ঘটনাক্রমে ছুরত সিং নিহত হন, এবং ১৭৭০ খৃষ্টাব্দে ঝাল সিংহের মস্তক দ্বিখণ্ডিত হয়। পাতিয়ালার উমার সিংহের সহিত যুদ্ধে, ১৭৭০ খৃষ্টাৰো, হরি সিং ভাঙ্গী নিহত হন।