পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/৩৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নবম পরিচ্ছেদ ইংরাজদিগের সহিত যুদ্ধ ՖԵ8(t-Ֆե8Ն [ শিখ এবং ইংরাজগিগের যুদ্ধের কারণ –সীমান্ত প্রদেশে অশাস্তি সম্ভাবনায় ইংরাজদিগের আতঙ্ক : SAe DBB BBSBBB BBBB BBBB BD KBBB BBHH SBBBB BBDDS BBBBBSSSBBBSBBBBB BBBBBS SBBBB BBBDDDD BB BBBBBBB BBBBBS উত্তেজনা বৃদ্ধি —ইংরাজদিগের শক্তিসামর্থ্য নির্ণয়ে শিখদিগের দৃঢ়।প্রতিজ্ঞ –শতক্ৰ অতিক্রম করিয়া শিখ সৈন্যের যুদ্ধের উদ্যোগ ;–শিখবিগের রণনৈপুণ্য –শিঞ্চসেনাপতিগণের উদ্দেশ্য ;-স্বেচ্ছাপূর্বক ফিরোজপুর পরিত্যাগ —মুদ্‌কির যুদ্ধ ;-ফিরুসহরের যুদ্ধ এবং শিখবিগের পলায়ন ;–ইংরাজ ও ভারতবাসী সম্বন্ধে এই সমুদায় নিফল বিজয় লাভের পরিণাম ;-শিখগণ কর্তৃক শতদ্রু পুনরতিক্রমণ – বাদোয়ালের খণ্ড যুদ্ধ ;-আলিওয়ালের যুদ্ধ –সন্ধি প্রস্তাবে রাজা গোলাপ সিংহের মধ্যস্থত ;– স্বব্ৰাওনের যুদ্ধ ;-শিখসর্দারগণের অধীনতা স্বীকার এবং ইংরেজ কতৃক লাহোর অধিকার ;–পঞ্জাৰ' ব্যবচ্ছেদ ; দলীপ সিংহের সহিত ইংরাজদিগের সন্ধি ;–গোলাপ সিংহের সহিত ইংরাজদিগের সন্ধি : - উপসংহার, ভারতে ইংরাজদিগের পদ-সামর্থ্য । ] ইংরাজ গবর্ণমেণ্ট বহুকাল পূর্বেই স্থির করিয়াছিলেন, বাধ্য হইয় পঞ্জাবের আত্মভিমানী শিখ-সৈন্যের সহিত যুদ্ধে প্রবৃত্ত হইতে হইবে। ভারতীয় জনসাধারণ, কেবলমাত্র বিদেশীয়গণের উন্নতি বিষয়ে অনুধাবন করিয়াছিলেন । র্তাহারা অন্ত আর একটি রাজ্য ইংরাজ-রাজ্যের সহিত সংযোজনের সংবাদ শুনিতে উৎসুক ছিলেন। কিন্তু কি কারণে রাজ্য-সংযোজিত হইল, তদ্বিষয় পুঙ্ক্ষাছুপুঙ্ক্ষ অনুসন্ধান করিয়া তাহারা নিজ নিজ কৌতুহল-বৃত্তি চরিতার্থ করিতে যত্ন করেন নাই। ম্বোর স্বাধপর শিখনায়কগণ সর্বদাই মনে করিতেন যে, যাহাতে র্তাহারা স্থখ-স্বচ্ছন্দে ও নিবিবাদে আপনাপন রাজ্য ভোগদখল করিতে সমর্থ হন, তাহাদের দেশের কার্য-প্রণালীতে সেইরূপ প্রতিকূলতাচরণ আবশ্বক। এই সমুদায় ঐশ্বর্যশালী অথচ হীনবল রাজগণ, রণজিৎ সিংহের শ্রেষ্ঠতম প্রতিভা সমক্ষে এবং যে নিগৃঢ় শক্তিতে অস্ত্রশস্ত্র সজ্জিত শিখ-জাতিকে অনুপ্রাণিত করিয়াছিল, সেই অব্যক্ত শক্তি সমক্ষে বিশেষরূপে নিন্দনীয় ও তিরস্থত হইতেন । এইরূপে যাহারী নির্বোধের ন্যায় আশা করিয়াছিল যে, কোনরূপ পরিবর্তন সাধিত হইলেই, তাহাঁদের সকল অভীষ্টই সিদ্ধ হইবে। কিন্তু শিখ-সৈন্ত হিন্দুস্থানের সর্বশ্রেষ্ঠ প্রবলপরাক্রাপ্ত শক্তির সহিত যুদ্ধে প্রবৃত্ত হওয়ার বিষয়ে বৃথা গর্ব করিলেও, প্রথম যুদ্ধের পূর্বে দুই তিন মাসের মধ্যে শিখগণ আন্তরিক ভাবে যুদ্ধে প্রবৃত্ত হইতে উৎস্থক হইয়াছিল কিনা—তাহ সন্দেহজনক। তখন পর্যন্তও অসভ্য ক্ষেত্রপালগণ ভাবিয়াছিল, একমাত্র আত্মরক্ষার জন্তই তাহারা যুদ্ধে গমন করিতে প্রস্তুত হইতেছে। যখন রাজ্য-মধ্যে শিখ সৈন্তই অধিকতর প্রবল হইয়া উঠিল, তখন হইতেই ইংরাজী