পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/৩৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ইংরাজের সহিত যুদ্ধ ૭૨૭ স্থানে উপনীত হইয়া ইংরাজ সেনাপতি দেখিলেন, বাম পার্থের পরিচালিত বৃটিশ সৈন্যের আক্রমণ পরিহার পূর্বক একদল শিখ সৈন্য দক্ষিণ পার্থে অগ্রসর হইয়াছে। কিন্তু শিখগণ যখন দেখিল, তাহাদের পশ্চাৎ হইতে ইংরেজ সৈন্য তাহাদিগকে আক্রমণ করিতে পারে, তখন তাহারা ফিরিয়া দাড়াইল ; তাহদের দক্ষিণ-পাৰ্থস্থিত বুদরী গ্রাম এবং বাম পাশ্বের আলিওয়াল গ্রাম তাহারা দখল করিয়া বসিল । সাধারণ সৈন্যের রীতি-প্রকৃতি এবং শিখদিগের জাতিগত ক্ষিপ্রকারিতা অনুসারে, তাহারা আপনাদের কামানের পুরোভাগে মৃত্তিকা দ্বারা বাধ বাধিতে লাগিল। অন্য কোন আশ্রয় না থাকিলেও, তাহারা তৎপশ্চাতে প্রচ্ছন্নভাবে থাকিতে পারিবে, এবং আক্রমণকারীদিগকে বাধা দিতে সক্ষম হইবে,— ইহাই তাহীদের উদ্দেশু। আকস্মিক সংঘর্ষ অনিবার্য হইয়া পড়িল । ব্রিটিশ-সেনাপতি অবিলম্বে যুদ্ধের আদেশ প্রদান করিলেন । বৃটিশসৈন্যদলের পুরোভাগে অশ্বারোহী সৈন্যদল অবস্থিত ছিল ; বাম-পাশ্ব ও দক্ষিণ পার্থের সৈন্যদলের মধ্যে তাহাদিগের শাণিত তরবারি ঝকঝক করিয়া উঠিল । তখন শ্রেণীবদ্ধ পদাতিক সৈন্যদল এবং কামানের অগ্নদগীরণ পরিলক্ষিত হইল। সেই দৃপ্ত কি স্বশোভন, কি ভীতিব্যঞ্জক। চক্ষের সমক্ষে যেন সমস্ত যুদ্ধক্ষেত্র প্রতিফলিত হইল ! ইংরাজ সৈন্যের রণসাজ এবং শিখদিগের নিশ্চল সৈন্যসমূহের প্রতি স্বতঃই দৃষ্ট সঞ্চালিত হইতে লাগিল। সকলেরই অস্তরে আনন্দ, হৃদয়ে সাহস অগ্রগমনোন্মুখ সৈন্যদলের উল্লাসব্যঞ্জক মুখমণ্ডল দর্শনে বোধ হইতেছিল, যেন তাহদের সহযোগী সৈন্যদলের মৃত্যুর ইচ্ছায় তাহারা অনুপ্রাণিত হইয়াছে ; প্রত্যেক সাহসী সৈনিক পুরুষই সেই ইচ্ছায়ই উদ্বুদ্ধ হইয়াছিল। সৈন্যগণ যখন যুদ্ধে শ্রেণীবদ্ধ হইয়া দাড়াইল, প্রতিপক্ষগণ তখন সমাস্তরাল ভাবে দণ্ডায়মান হয় নাই। শিখ-সৈন্য-শ্রেণী সম্মুখের দিকে অগ্রসর হইয়াছিল, এবং বৃটিশ-সৈন্যের দক্ষিণদিকে বিস্তৃত হইয়া পড়িয়াছিল। তাঁহাদের অপর আর একদল কিছুকালের জন্য কিয়দুরে পশ্চাতের দিকে অবস্থিত ছিল। শ্রেণীবদ্ধভাবে সৈন্য-সজ্জার জন্য, ইংরাজগণ আট মাইল পথের মধ্যে একবারও বিশ্রাম করেন নাই ; কিন্তু শিখগণ সেই অভাব সত্বেও যুদ্ধ আরম্ভ করিয়া দিল। সার হারি স্মিথ বিবেচনা করিলেন,– আলিওয়াল গ্রাম আক্রমণ করাই সর্বপ্রথম আবশুক ; দক্ষিণদিকের পদাতিক সৈন্যদল তদুদেশুেই পরিচালিত হইল। এইবার ঘোরতর যুদ্ধের সম্ভবনা উপস্থিত। শিখগণ দৃঢ়তার সহিত অবিচ্ছিন্নভাবে কামান বর্ষণ করিতে লাগিল। এই সময়ে শিখদিগের একদল পার্বতীয় পদাতিক সৈন্য আলিওয়াল রক্ষা করিতেছিল। তাহারা সৎস্বভাব সম্পন্ন ; কিন্তু ‘খালসার প্রতি অনুরক্ত নহে –এই জন্যই কুচক্তিগণ তাহাদিগকে উচ্চপদ প্রদান করিয়াছিলেন। অগ্নিবর্ষণ আরম্ভ হইলে, তাহারা ছত্রভঙ্গ হইয়া পলায়ন করিল ; তাহাদের তাৎকালিক অধিনায়ক রণজোর সিংহও পলায়ন করিলেন । বিজয়ী ইংরাজ-সৈন্য কর্তৃক নিহত হইবার জন্যই যেন একদল সাহসী শিখ-গোলন্দাজ সৈন্য, রণক্ষেত্রে পড়িয়া রহিল। দক্ষিণদিকের বৃটিশ অশ্বারোহী সৈন্যদল এই সময়ে ভীমবেগে তাহাদিগকে আক্রমণ করিল। তখন প্রতিদ্বন্দ্বী শিখসৈন্যের