পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/৩৯৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


-ø(re শিখ-ইতিহাস ইংলও অতি বিচক্ষণতার সহিত কার্য করিবেন ; সকলের প্রতিই সহানুভূতি প্রদশিত হয়, ইংরাজগণের তৎপ্রতি লক্ষ্য রাখা কর্তব্য ; তাহা হইলে ইংরাজগণ উন্ধেগু সাধনে কৃতকার্য হইবেন । ইংলণ্ডের রাজত্ব সর্বশ্রেষ্ঠ ; সর্বপ্রকার রাজনৈতিক বিবাদবিসম্বাদ ইংলণ্ডই মীমাংসা করিয়া দেন। কিন্তু সামাজিক পরিবর্তন এবং মানসিক বিপ্লব সাগরের বীচিবিক্ষোভে, স্ববৃহৎ বৃটিশ সাম্রাজ্যের ক্ষীণ বহিরাবরণ টলায়মান হইয়া পড়ে। কি সভ্যতালোকে, কি মধ্যবতিতার নিরপেক্ষতায়, সর্ববিষয়েই ইংলণ্ডের অদ্বিতীয় মহত্বই প্রকাশ পাইয়া থাকে। অধীনস্থ প্রজাবর্গের নিকট ইংলণ্ড কেবলমাত্র সাহায্য গ্রহণ করিতে পারেন ; ইংলও কখনও প্রকৃতিপুঞ্জের অত্যধিক কৃতজ্ঞতা এবং অমুরক্তির উপর নির্ভর করিতে পারেন না। রাজনৈতিক প্রাধান্ত বজায় রাখিতে হইলে, ইংরাজদিগের বিচক্ষণ এবং সতর্ক হইতে হইবে ; এবং চিরস্থায়ী স্মৃতি-চিহ্ন বর্তমান রাখিতে হইলে, সাম্রাজ্যের ক্ষণভঙ্গুর কীৰ্তিস্তম্ভ স্বরূপ প্রিয়দর্শন রাজপ্রাসাদ কিংবা উপাসনা মন্দির নির্মাণের পরিবর্তে, ইংলণ্ডকে তদপেক্ষা গুরুতর কার্য সম্পন্ন করিতে হইবে। প্রাচীন গ্ৰীস এবং রোমের পদাঙ্ক অনুসরণ করিয়া, ইংলণ্ড অদ্বিতীয় সৌন্দর্যবিশিষ্ট অট্টালিকা নির্মাণ করিতে পারেন ; নদী, মহানদী প্রভৃতির উপর, তাহারা প্রকাও প্রকাও সেতু নিৰ্মাণ করিতে সক্ষম ; বিজ্ঞানবলে এবং অর্থের ঐন্দ্রজালিক .মোহিনী-শক্তি সাহায্যে র্তাহারা পর্বত ভেদ করিতে সমর্থ। সেই সকল প্রাচীন জাতির স্তায়, ইংরাজগণও বৈদেশিক রাজ্যে, প্রবল-পরাক্রাস্ত ‘হেরড দি গ্রেটের ন্যায় নরপতিকুল স্বাক্ট করিতে পারেন ; তাহাদের শিক্ষা কৌশলে ফ্লেভিয়াস জোসেফাসের ন্যায় খ্যাতনামা ঐতিহাসিক দৃষ্টিগোচর হওয়াও সম্ভবপর। কিন্তু ভটিজার্ণের আহবানে হেজিষ্ট যেরূপ র্তাহার অনুগত হইয়াছিলেন, এবং সিয়াগীয়স যেমন ক্লভিসের নিকট বগুতা স্বীকার করিয়াছিলেন, প্রাচীন রোমের ন্যায়, ইংলণ্ডের সারা জীবনেও সেরূপ ঘটবে কিনা সন্দেহস্থল। ইংলও অপর একজন "সিম্বেলিনাকে সভ্য জীবনের রমণীয়তা শিক্ষা দান করিতে পারেন ; ইংলণ্ডের প্ররেচেনায় অপর একজন এটেলাস, পারগেমসের সহিত বিবাহ-স্থত্রে আবদ্ধ হইতে পারে ;–অর্থাৎ বর্তমান সময়েও ইংলণ্ডের শিক্ষা-গুণে অসংখ্য বীরপুরুষ, অদ্বিতীয় কল্পনাশক্তি-সম্পন্ন কবি প্রভৃতি জন্মগ্রহণ করিতে পারেন,তাহাতে সন্দেহ নাই। এ সমুদায় অতি সহজেই নিম্পন্ন হইতে পারে। কিন্তু ভবিষ্যতে যে সকল জাতি গঠিত হইবে, তাহাদের মধ্যে যাহাতে সেই সকল কবি এবং দার্শনিক অক্ষয়কীতি অর্জন করিতে পরেন ;–এক্ষণে ইংলণ্ডের তাঁহাই করা কর্তব্য ; ৬• পুরুষ পারেও যাহা বর্তমান থাকিতে পারে, সেইরূপ আইন পদ্ধতি বিধিবদ্ধ করাই যুক্তিযুক্ত ; রোমের প্রাচীন নীতি এবং গ্রীসের দর্শনশাস্ত্র যেমন খৃষ্টধর্মের সংস্কার সাধন করিয়াছিল, সেইরূপ বিজ্ঞান এবং নীতি-শাস্ত্রবলে ইংলগুেরও, লোকের ধর্ম-বিশ্বাস এবং চিন্তা বৃত্তির উপর আধিপত্য বিস্তার করিতে চেষ্টা করা যুক্তিসঙ্গত। ষে আদর্শের উপর ইংলণ্ডের -শাসন-প্ৰণালী প্রতিষ্ঠিত, সেই আদর্শের সমকক্ষ হইতে, অথবা তাহা হইতে শ্রেষ্ঠত্ব