পাতা:শোধবোধ-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রথম অঙ্ক শোধ-বোধ পঞ্চম দৃষ্ঠা শশধব । সতীশ, আমন উতলা হ’য়ে না । ব্যাপাবট কী বলে ! হবেনকে কণব হাত থেকে বক্ষণ ক’ববাব জন্স ডেকেছিলে ? সতীশ । অামাব হাত থেকে ( পিস্তল দেখাইযা ) এই দেখ এই দেখ—মেসোমশোম । দ্রুতপদে বিধুমুখীর প্রবেশ বিধু। স তাশ, তুষ্ট কোথাম কী সৰ্ব্বনাশ কবে এসেছিস্ বল দেখি ! আণিসের সাহেব পুলিস সঙ্গে নিযে আমাদেব বাড়িতে থানাতল্লাসি ক’বতে এসেচে। যদি পালাতে তয, এই বেলা পালা ! হাম ভগবান । আমি তো কোনো পাপ কবিনি, আমারি অদৃষ্টে এত দুঃখ ঘটে কেন ? সতীশ । ভঘ নেই—পালাবাব উপায আমাব হাতেই আছে । শশধব । তবে কী তুমি — সতীশ । তাই বটে মেসোমশায, যা সন্দেহ ক’বেচে, তাই। আমি চুবি কবে মাসিব ঋণ শোধ ক’বেচি। আমি চোব । মা তুমি শুনে খুলী হবে, আমি চোব, আমি খুনী ! তোমাব কীৰ্ত্তি পূবে ক’লো। এখন আব কঁদিতে হবে না—যাও তুমি, যাও তুমি, যাও যাও, আমাৰ সন্মুখ থেকে যাও। আমাব অসহ বোধ হচ্ছে। শশধৰ। সতীশ, তুমি আমার কাছেও তো কিছু ঋণী আছ, তাই শোধ কবে? যাও । সতীশ । বলো, কেমন কবে শোধ করবো। কী আমি দিতে পাবি। কী চাও তুমি! [ ૧૬