পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/১১৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


boశి শ্ৰীশ্ৰীরামকৃষ্ণকথামৃত—৫ম ভাগ ( ১৮৮৩, ২৬শে সেপ্টেম্বর সকলেই কিয়ৎকাল চুপ করিয়া রছিলেন। মহেন্দ্ৰ—কতক জ্ঞানের পর সংসার! সে সজ্ঞানে মৃত্যু—ওলাউঠা! ত্রীরামকৃষ্ণ—রাম । রাম! মৃত্যু সময় জ্ঞান থাকলে খুব যন্ত্রণাবোধ হয় ; যেমন Choleraতে হয়। এই কথা বুঝি মহেন্দ্র বলছেন। অবিদ্যা সংসার দাবানল তুল্য—তাই বুঝি ঠাকুর রাম । রাম!’ বলিতেছেন। মহেন্দ্ৰ— অন্তলোক তবু বিকারের রোগী, অজ্ঞান হয়ে যায় ; মৃত্যু যন্ত্রণা . . বোধ থাকে না | শ্রীরামকৃষ্ণ—দেখনা, টাকা থাকলেই বা কি হবে ! জয়গোপাল সেন, অত টাকা আছে কিন্তু দুঃখ করে, ছেলেরা তেমন মানে না। মহেন্দ্ৰ—সংসারে কি শুধু দারিদ্র্যই দুঃখ ? এ দিকে ছয় রিপুঃ তার পর রোগ শোক । ঐরামকৃষ্ণ—আবার মানসন্ত্রম। লোকমান্য হবার ইচ্ছ। W “আচ্ছা, আমার কি ভাব ?” ஆ মহেন্দ্ৰ—ঘুম ভাঙ্গলে মামুযের যা,—যা হবার তাই। ঈশ্বরের সঙ্গে সদা যোগ । শ্রীরামকৃষ্ণ—তুমি আমায় স্বপ্নে দেখ। মহেন্দ্ৰ—ই, অনেকবার। শ্রীরামকৃষ্ণ-কিরূপ? কিছু উপদেশ দিতে দেখ? মহেন্দ্র চুপ করিয়া আছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ—যদি দেখ আমাকে শিক্ষা দিতে, তবে জানবে সে সচ্চিদানন্দ। মহেন্দ্র অতঃপর স্বপ্নে যাহা দেখিয়াছিলেন, তাছা সমস্ত বর্ণনা করিলেন। শ্রীরামকৃষ্ণ মনোযোগ দিয়া সমস্ত শুনিলেন। ঐরামকৃষ্ণ (মহেঞ্জের প্রতি –এ খুব ভাল! তুমি আর বিচার এনে না। ৮ ভোমরা শাক্ত ।