পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/১৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


गक्रिञश्वब्र-जश्ञांद्रौ ७ ठTांधैो छङ्क 283 "সংসারী লোকদের ভোগের দিকে মন রয়েছে—তাই জন্ত সে অম্বুরাগ সে ব্যাকুলত হয় না ।” _ “একাদশী তিন প্রকার। প্রথম–নির্জলা একাদশী, জল পৰ্য্যস্ত খায় না। তেমনি ফকির পূর্ণত্যাগী, একবারে সব ভোগ ত্যাগ। দ্বিতীয়—দুধ সন্দেশ " খায়—ভক্ত যেমন গৃহে সামান্ত ভোগ রেখে দিয়েছে। তৃতীয়—লুচি ছক্ক খেয়ে একাদশী—পেট ভরে থাচ্ছে ; হ’ল দু’খানা রুটি দুধে ভিজছে, পরে" খাবে।” “লোকে সাধন ভজন করে, কিন্তু মন কামিনীকাঞ্চনে, মন ভোগের দিকে, তাই সাধন ভজন ঠিক হয় না।” “হাজরা এখানে অনেক জপ তপ করত, কিন্তু বাড়ীতে স্ত্রী ছেলে পুলে, জমি এসব ছিল, কাজে কাজেই জপ তপও করে, ভিতরে ভিতরে দালালিও করে। এ সব লোকের কথার ঠিক থাকে না । এই বলে মাছ খাব না, আবার খায় ।” “টাকার জন্ত লোকে কিনা করতে পারে। ব্রাহ্মণকে, সাধুকে মোট বছাতে পারে।” “সন্দেশ পচে যেত, তবু এসব লোককে দিতে পারতুম না। অন্ত লোকের ছেগো ঘটার জল নিতে পারতুম এসব লোকের ঘটী ছুতুম না।” “হাজরা টাকাওয়ালা লোক দেখলে কাছে ডাকত-ডেকে লম্বা লম্বা কথা শোনাত, আবার তাদের বোলত, রাখাল টাখাল যা সব দেখছ—ওরা জপ তপ করতে পারে না—হে হে করে বেড়ায় । “আমি জানি যে যদি কেউ পৰ্ব্বতের গুহায় বাস করে, গায়ে ছাই মাখে, উপবাস করে, নানা কঠোর করে, কিন্তু ভিতরে ভিতরে বিষয়ে মন—কামিনীকাঞ্চনে মন—সে লোককে আমি বলি ধিক ; আর যার কামিনীকাঞ্চলে মন নাই—খায় দায় বেড়ায়, তাকে বলি ধন্ত।” । (মণি মল্লিককে দেখাইয়া)-এর বাড়ীতে সাধুর ছবি নাই। সাধুদের ছবি রাখলে ঈশ্বরের উদ্দীপন হয়।