পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/১৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>W 8 শ্ৰীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত—৫ম ভাগ [ ১৮৮৪, মে ২৪ গ্রীরামকৃষ্ণ তাদের আবার বললেন, শিবপূজা যেমন বললাম ঐরূপ করবে। আর খেয়ে দেয়ে এসো, তা না হলে আমার কষ্ট হয়। স্নানযাত্রার দিন আবার আসবার চেষ্টা কোরো। গঞ্জ পরিচ্ছেদ গ্রীরামকৃষ্ণ এইবার পশ্চিমের গেল বারাণ্ডায় আসিয়া বসিয়াছেন। বন্দ্যোপাধ্যায়, হরি, মাষ্টার প্রভৃতি কাছে বসিয়া আছেন। বন্দ্যোপাধ্যায়ের সংসারের কষ্ট ঠাকুর সব জানেন। [ বন্দ্যোকে শিক্ষা–ভাৰ্য্যা সংসারের কারণ—শরণাগত হও ] শ্রীরামকৃষ্ণ—“দেখ, এক কপ্লিকে বাস্তে’ যত কষ্ট। বিবাহ করে, ছেলে পুলে হয়েছে, তাই চাকরী করতে হয়। সাধু কপি লয়ে ব্যস্ত ; সংসার ব্যস্ত ভাৰ্য্যা লয়ে। আবার বাড়ীর সঙ্গে বণিবনাও নাই, তাই—আলাদা বাসা করতে হয়েছে। (সহস্তে ) চৈতন্যদেব নিতাইকে বলেছিলেন, “শুন শুন নিত্যানন্দ ভাই, সংসারী জীবের কভু গতি নাই।” মাষ্টার (স্বগত: )—ঠাকুর বুঝি অবিদ্যার সংসারের কথা বলছেন। অবিদ্যার সংসারেই বুঝি ‘সংসারী জীব' থাকে। (মাষ্টারকে দেখাইয়া,—সহাস্তে ) ইনিও আলাদা বাসা করে আছেন। ‘তুমি কে, না আমি বিদেশিনী ; আর 'তুমি কে, না আমি বিরহিনী।” (সকলের হাস্ত ) বেশ মিল হবে। “তবে তার শরণাগত হলে আর ভয় নাই। তিনিই রক্ষা করবেন।” হরি প্রভৃতি—আচ্ছা, অনেকের তাকে লাভ করতে অত দেরী হয় কেন ? শ্রীরামকৃষ্ণ—কি জানো, ভোগ আর কৰ্ম্ম শ্যে না হলে ব্যাকুলত আসে না। বৈদ্য বলে, দিন কাটুক—তার পর সামান্ত ঔষধে উপকার হবে।