পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/১৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শ্রীরামকৃষ্ণ ভক্তসঙ্গে—সুরেন্দ্রের প্রতি উপদেশ Sዋማ স্বরেজ-আমার ধ্যান ভাল হয় না । মাঝে মাঝে মা মা বলি ; আর শেবার সময় মা মা বলতে বলতে ঘুমিয়ে পড়ি। শ্রীরামকৃষ্ণ—তা হলেই হল । স্মরণ মনন ত আছে। o “মনোযোগ ও কৰ্ম্মযোগ। পূজা, তীর্থ, জীবসেব ইত্যাদি গুরুর উপদেশে কৰ্ম্ম করার নাম কৰ্ম্মযোগ । জনকাদি যা কৰ্ম্ম করতেন তার নামও কৰ্ম্মযোগ। যোগীরা যে স্মরণ মনন করেন তার নাম মনোযোগ । “আবার ভাবি কালীঘরে গিয়ে, মা মনও ত তুমি ! তাই শুদ্ধ মন, শুদ্ধ বুদ্ধি, শুদ্ধ আত্মা একই জিনিষ।” সন্ধ্যা আগত প্রায়, ভক্তেরা অনেকেই ঠাকুরকে প্রণাম করিয়া বাটী প্রত্যাগমন করিতেছেন । ঠাকুর পশ্চিমের বারাণ্ডায় গিয়াছেন ; ভবনাথ ও মাষ্টার সঙ্গে আছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (ভবনাথের প্রতি )—তুই এত দেরীতে দেরীতে আসিস্ কেন ? ভবনাথ ( সহাস্তে )—আজ্ঞে, পনর দিন অন্তর দেখা করি ; সে দিন আপনি নিজে রাস্তায় দেখা দিলেন, তাই আর আসি নাই । ত্রীরামকৃষ্ণ—সে কিরে ? শুধু দর্শনে কি হয় ? স্পর্শন, আলাপ এ সবও চাই । চতুর্থ পরিচ্ছেদ জন্মোৎসব রাত্রে গিরীশ প্রভৃতি ভক্তসঙ্গে (প্রমানন্দে সন্ধ্যা হইল। ক্রমে ঠাকুরদের আরতির শব্দ শুনা যাইতেছে । আজ ফাঙ্কনের শুক্লাষ্টমী ; ৬, ৭ দিন পরে পূর্ণিমার দোল মহোৎসব হইবে। ঠাকুরবাড়ীর মন্দির শীর্য, প্রাঙ্গণ, উদ্যানভূমি, বৃক্ষশীর্ষ–চন্দ্রালোকে মনোহর রূপ ধারণ করিয়াছে। গঙ্গা এক্ষণে উত্তরবাহিনী, জ্যোৎস্নাময়ী, মন্দিরের গা দিয়া যেন আনন্দে উত্তরমুখ হইয়া প্রবাহিত হইতেছে। > ミー●さI