পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/২০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


●brbr শ্ৰীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত—৫ম ভাগ [ ১৮৮৫, ফ্রেব্রুয়ারী ২৫ শ্রীরামকৃষ্ণ (অতুলের প্রতি ) –কেন ? অমন अँीछे বুঝি হয় না— ব্যাকুলতা ? অতুল—মন কৈ থাকে। শ্রীরামকৃষ্ণ—অভ্যাসযোগ ! রোজ তাকে ডাকা অভ্যাস করতে হয়। এক দিনে হয় না ; রোজ ডাকতে ডাকতে ব্যাকুলত আসে। “কেবল রাত দিন বিষয় কৰ্ম্ম করলে ব্যাকুলত কেমন করে আসবে ? যদু মল্লিক আগে আগে ঈশ্বরীয় কথা বেশ শুনত, নিজেও বেশ বলত ; আজকাল আর তত বলে না, রাতদিন মোসাহেব নিয়ে বসে থাকে, কেবল বিষয়ের কথা !” [ সন্ধ্যা সমাগমে ঠাকুরের প্রার্থনা—তেজচন্দ্র ] সন্ধ্যা হইল ; ঘরে বাতি জ্বালা হইয়াছে। শ্রীরামকৃষ্ণ ঠাকুরদের নাম করিতেছেন, গান গাহিতেছেন ও প্রার্থনা করিতেছেন। “বলিতেছেন, ‘হরিবোল’ ‘হরিবোল’ ‘হরিবোল ; আবার ‘রাম’ ‘রাম’ ‘রাম’ আবার নিত্যলীলাময়ী’। ওমা, উপায় বল মা ! ‘শরণাগত শরণাগত

  • শরণাগত’ । &

গিরীশকে ব্যস্ত দেখিয়া ঠাকুর একটু চুপ করিলেন। তেজচন্দ্রকে বলিতেছেন, তুই একটু কাছে এসে বোস। তেজচন্দ্র কাছে বসিলেন। কিয়ৎক্ষণ পরে মাষ্টারকে ফিস্ ফিস্ করিয়া বলিতেছেন, আমায় যেতে হবে। © শ্রীরামকৃষ্ণ (মাষ্টারের প্রতি )—ও কি বলছে ? মাষ্টার—বাড়ীতে যেতে হবে তাই বলছে। ঐরামকৃষ্ণ—আমি ওদের অত টানি কেন ? ওরা নিৰ্ম্মল আধার—বিষয় বুদ্ধি ঢোকেনি। বিষয়-বুদ্ধি থাকলে উপদেশ ধারণা করতে পারে না। নূতন হাড়িতে দুধ রাখা যায়, দই পাত হাড়িতে দুধ রাখলে দুধ নষ্ট হয়। “যে বাটতে রসুন গুলেছে, সে বাটি হাজার ধোও, রমুনের গন্ধ যায় না।”