পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/২৩৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঐরামকৃষ্ণ, নরেজ-কৰ্ম্মযোগ ও সৰ্ব্বধৰ্ম্মসমন্বয় ९%* গুরুষগণ জীবের মঙ্গলার্থে বরাবর করিয়া গিয়াছেন। এই নিষ্কাম ধৰ্ম্ম পালনার্থ যেন আমরাও তাছার পদামুসরণ করিতে পারি। কিন্তু এটি কি কঠিন ব্যাপার। প্রথমে হরিপাদপদ্মলাভ করিতে হইবে। তজ্জন্ত বিবেকাননের ন্যায় ত্যাগ ও তপস্যা করিতে হইবে। তবে এই অধিকার হইতে পারে। ধন্ত ত্যাগী মহাপুরুষ! তুমি যথার্থই গুরুদেবের পদায়ুসরণ করিয়াছ। গুরুদেবের মহামন্ত্ৰ-আগে ঈশ্বরলাভ, তাহার পর অন্ত কথা, তুমিই সাধন করিয়াছ! তুমিই বুধিয়াছিলে, ভগবানকে ছাড়িয়া দিলে অতিবাদী হইলে, এ সংসার যথার্থই স্বপ্লবং, ভেল্কিবাজি ; তাই সৰ্ব্বত্যাগ করিয়া তাছার সাধন আগে করিয়াছিলে। যখন দেখিলে সৰ্ব্ববস্তুর প্রাণ তিনি, যখন দেখিলে, তিনি ছাড়া কিছুই নাই, তখন আবার এই সংসারে মনোনিবেশ করিলে ; তখন হে মহাযোগিন! সৰ্ব্বভূতত্ত্ব সেই হরির সেবার জন্ত আবার বর্ধক্ষেত্রে অবতরণ করিলে; তখন তোমার গভীর অপার প্রেমের অধিকারী সকলেই হইল—ংি", মুসলমান, খ্ৰীষ্টান,বিদেশী, স্বদেশবাণী, ধনী, দরিদ্র, নর, নারী সকলকেই ভূমি প্রেমালিঙ্গন দান করিয়াছ! তীব্র বৈরাগ্য-বশত: যে গর্ভধারিণী মাতৃদেবীকেও ত্যাগ করিয়া, চক্ষুর জলে ভাসাইয়া গৈরিকবন্ত্র ধারণ করিয়া চলিয়া গিয়াছিলে, তখন সেই মা'কে আবার দর্শন দিলে ও বাৎসল্য স্বীকার করিয়া তাহার মনোবাং পূর্ণ করিলে। ভূমি নারাদি, জনকাদির স্থায়, লোকশিক্ষার দ্বন্ত বর্ণ করিয়াছিলে!