পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/২৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্ত্রীরামকৃষ্ণ-বিজয়, কেশব, নরেন্দ্র ও কামিনীকাঞ্চন ত্যাগ ২২৭ মন কোথায় ? যদি হরিপাদপদ্মে থাকে, আমি তাকে মানি, যদি কামিনীকাঞ্চনে থাকে, তা হলে আমার খড় কুটো বোধ হয়।” স্বামী বিবেকানন্দ শুধু পণ্ডিত নহেন, তিনি সাধুমহাপুরুষ ! শুধু পাণ্ডিত্যের জন্ত ইংরাজ ও আমেরিকাবাসীগণ ভূত্যের দ্যায়, তাহার সেবা করেন নাই । র্তাহারা বুঝিয়াছিলেন যে ইনি আর এক জাতীয় লোক। সন্মান, টাকা, ইন্দ্রিয়সুখ, পাণ্ডিত্য প্রভৃতি লইয়া লোক রহিয়াছে ; ইহার কিন্তু এক লক্ষ্য, ঈশ্বরলাভ । সন্ন্যাসীর গীতিতে তিনিই বলিয়াছেন, সন্ন্যাসী কামিনীকাঞ্চন ত্যাগ করিবে । “Truth never comes where lust and fame and greed Of gain reside. No man who thinks of woman As his wife can ever perfect be. Nor he who owns however little, nor he— Whom anger chains—can ever pass through May’s gates. So give these up, Sannyasin bold, Say "tat sat Om !” [Song of the Sannyasin. আমেরিকায় তাহার প্রলোভন কম হয় নাই। একে জগদব্যাপী প্রতিষ্ঠা ; তাহাতে সৰ্ব্বদাই পরমাসুন্দরী উচ্চবংশীয় সুশিক্ষিত মহিলাগণ আসিয়া আলাপ ও সেবা করিতেন। র্তাহার এত মোহিনী-শক্তি যে র্তাহীদের মধ্যে অনেকে তাহাকে বিবাহ করিতে চাহিতেন। একজন অতি ধনাট্যের কন্য (heiress ) সত্য সত্য একদিন আসিয়া তাহাকে বলিয়াছিলেন, “স্বামী ! আমার সর্বস্ব ও আমাকে আপনাকে সমর্পণ করিলাম।” স্বামী তদুত্তরে বলিলেন, “ভদ্রে! আমি সন্ন্যাসী, আমার বিবাহ করিতে নাই। সকল স্ত্রীলোক আমার মাতৃস্বরূপ৷ ” ধন্ত বীর । তুমি গুরুদেবের উপযুক্ত শিষ্য ! তোমার