পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/২৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


있C8 মীরামকৃষ্ণ কথামৃত—৫ম ভাগ [ পরিশিষ্ট “ও দেশে হালদার পুকুরের পাড়ে রোজ বাহে ক’রে যেতো, লোকে সকালে এসে দেখে গালাগালি দিত। লোক গালাগালি দেয় তবু বাহে আর বন্ধ হয় না। শেষে পাড়ার লোক দরখাস্ত ক’রে কোম্পানীকে জানালে । তার একটা নোটৗশ মেরে দিলে,—এখানে বাহে, প্রস্রাব করিওনা, তা করিলে শাস্তি পাইবে ।” তখন একেবারে সব বন্ধ । আর কোনও গোলযোগ নাই। কোম্পানীর হুকুম—সকলের মানতে হবে।” “তেমনি ঈশ্বর সাক্ষাৎকার হয়ে যদি আদেশ দেন, তবেই প্রচার হয়, লোক-শিক্ষণ হয়, তা না হ’লে কে তোমার কথা শুনবে ? এই কথাগুলি সকলে গম্ভীর ভাবে স্থির হইয়া শুনিতে লাগিলেন ; [ শ্ৰীযুত বঙ্কিম ও পরকাল ] [Life after Death—argument from analogy | শ্রীরামকৃষ্ণ ( বঙ্কিমের প্রতি )—আচ্ছা, আপনি ত খুব পণ্ডিত, আর কত বই লিখেছ ; আপনি কি বলো, মাছুষের কৰ্ত্তব্য কি ? কি সঙ্গে যাবে ? পরকাল তো আছে ? இ বঙ্কিম—পরকাল । সে আবার কি ? শ্রীরামকৃষ্ণ—ই, জ্ঞানের পর আর অন্ত লোকে যেতে হয় না,—পুনর্জন্ম হয় না। কিন্তু যতক্ষণ না জ্ঞান হয়, ঈশ্বর লাভ হয়, ততক্ষণ সংসারে ফিরে আসতে হয়, কোনমতে নিস্তার নাই । ততক্ষণ পরকালও আছে । জ্ঞানলাভ হ’লে, ঈশ্বরদর্শন হ’লে মুক্তি হয়ে যায়—আর আসতে হয় না। সিদ্ধ ধান পুতলে আর গাছ হয় না । জ্ঞানাগ্নিতে সিদ্ধ যদি কেহ হয় তাকে নিয়ে আর স্বষ্টির থেল হয় না। সে সংসার করতে পারে না, তার তো কামিনী-কাঞ্চনে আসক্তি নাই । সিধোনো-ধান ক্ষেতে পুতলে কি হবে ? বঙ্কিম ( হাসিতে হাসিতে )—মহাশয়, তা আগাছাতেও কোন গাছের কায হয় না | to শ্রীরামকৃষ্ণ—জ্ঞানী তা ব'লে আগাছা নয়। যে ঈশ্বর দর্শন করেছে, সে অমৃত ফল লাভ করেছে—লাউ, কুমড়া ফল নয় । তার পুনর্জন্ম হয় না। পৃথিবী বল, স্বৰ্য্যলোক বল, চন্দ্রলোক—কোনও জায়গায় তার আসতে হয় না।