পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কমল কুটীরে শ্রীরামকৃষ্ণ ও শ্ৰীযুক্ত কেশব > ● মনোমোহনের মাতাঠাকুরাণী পরম ভক্তিমতী yশু্যামাসুন্দরী দেবী ঠাকুরকে পরিবেশন করিয়াছিলেন। রাম খাবার সময় দাড়াইয়াছিলেন। যেদিন ৪/রাজেঞ্জের বাটীতে শ্রীরামকৃষ্ণ শুভাগমন করেন, সেইদিন অপরাহ্নে সুরেন্দ্র তাহাকে লইয়া চীনা বাজারে তাহার Photograph লইয়াছিলেন । ঠাকুর দণ্ডায়মান সমাধিস্থ । উৎসবের দিবসে ৮মহেন্দ্র গোস্বামী ভাগবত পাঠ করিলেন । ১৮৮২ জানুয়ারী মাঘোৎসবের সময় সিমুলিয়া ব্রাহ্ম সমাজের উৎসব হয়। vজ্ঞান চৌধুরীর বাটতে, দালানে ও উঠানে উপাসনা ও কীৰ্ত্তন হয় । শ্রীরামকৃষ্ণ ও কেশব নিমন্ত্রিত হইয়া উপস্থিত ছিলেন । এই স্থানে নরেন্দ্রের গান ঠাকুর প্রথমে শুনেন ও র্তাহাকে দক্ষিণেশ্বরে যাইতে বলেন। ১৮৮২ খৃষ্টাব্দে ২৩শে ফেব্রুয়ারী ১২ই ফাল্গুন বৃহস্পতিবার কেশব শ্রীরামকৃষ্ণকে দক্ষিণেশ্বরে ভক্তসঙ্গে আবার দর্শন করিতে আসেন। সঙ্গে Joseph Cook, Afonsors পাদরী Miss Pigot ও ব্রাহ্ম ভক্তগণ । কেশবও ঠাকুরকে Steamerএ তুলিয়া লইলেন। Cook সাহেব ঐরামকৃষ্ণের সমাধি অবস্থা দেখিলেন। শ্ৰীযুক্ত নরেন্দ্র এই জাহাজে উপস্থিত ছিলেন। র্তাহার মুখে সমস্ত শুনিয়া মাষ্টার অল্প কয়দিনের মধ্যে দক্ষিণেশ্বরে শ্রীরামকৃষ্ণকে প্রথম দর্শন করেন। তিন মাস পরে এপ্রিল মাসে শ্রীরামকৃষ্ণ কমল কুটীরে কেশবকে দেখিতে আসেন। তাহারই একটু বিবরণ এই পরিচ্ছেদে দেওয়া হইল। [ শ্রীরামকৃষ্ণের কেশবের প্রতি স্নেহ-জগন্মাতার কাছে ডাবচিনি মানা ] আজ কমল-কুটীরে সেই বৈঠকখানা-ঘরে ঠাকুর ঐরামকৃষ্ণ ভক্ত সঙ্গে উপবিষ্ট। ২রা এপ্রিল ১৮৮২ বেল ৫টা। কেশব ভিতরের ঘরে ছিলেন, তাহাকে সংবাদ দেওয়া হইল। তিনি জামা-চাদর পরিয়া আসিয়া প্ৰণাম করিলেন। র্তাহার ভক্ত-বন্ধু কালীনাথ বস্থ পীড়িত, র্তাহাকে দেখিতে যাইতেছেন। ঠাকুর আসিয়াছেন, কেশবের আর যাওয়া হইল না। ঠাকুর বলিতেছেন—তোমার অনেক কাজ, আবার খপরের কাগজে লিখতে হয় ;