পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/৩০৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ミbrげ ঐত্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত—৫ম ভাগ [ পরিশিষ্ট ক্রীরামকৃষ্ণ অনেক বলাতে কেশব উঠিয়া উপাসনা আরম্ভ করিলেন। উপাসনা মধ্যে ঠাকুর হঠাৎ দণ্ডায়মান—সমাধিস্থ হইয়াছেন ব্রান্ধভক্তগণ গান গাহিতেছেন— মন একবার হরি বল হরি বল হরি বল । হরি হরি হরি বলে ভবসিন্ধু পারে চল ॥ জলে হরি, স্থলে হরি, অনলে অনিলে হরি। চন্দ্রে হরি, স্বৰ্য্যে হরি, হরিময় এই ভূমণ্ডল। ঐরামকৃষ্ণ এখনও ভাবস্থ হুইয়া দণ্ডায়মান। কেশব অতি সস্তপণে র্তাহার হাত ধরিয়া দালান হইতে প্রাঙ্গণে নামিলেন। গান চলিতেছে। এইবার ঠাকুর গানের সঙ্গে নৃত্য করিতেছেন। চতুর্দিকে ভক্তগণও নাচিতেছেন। জ্ঞানবাবুর দ্বিতলের ঘরে শ্রীরামকৃষ্ণ, কেশব প্রভৃতিকে জল খাওয়াবার আয়োজন হইতেছে। র্তাহারা জলযোগ করিয়া আবার নীচে নামিয়া বসিলেন। ঠাকুর কথা কহিতে কহিতে আবার গান গাহিতেছেন। কেশবও সেই সঙ্গে যোগ দিয়াছেন— মজলো আমার মন ভ্রমরা শু্যামাপদ নীল কমলে । যত বিষয় মধু তুচ্ছ হ’ল কামাদি কুসুম সকলে। গান— হামাপদ আকাশেতে মন ঘুড়ি খান উড়িতেছিল। কলুষের কুবাতাস খেয়ে গোপ্ত খেয়ে পড়ে গেল। ঠাকুর কেশব দু’জনেই মাতিয়া গেলেন। আবার সকলে মিলিয়া গান ও নৃতা, রাত্রি দ্বিপ্রহর পর্য্যস্ত। একটু বিশ্রাম করিয়া ঠাকুর কেশবকে বলিতেছেন—তোমার ছেলের বিবাহের বিদায় পাঠিয়েছিলে কেন ? ফেরৎ এনো—আমি ও সব নিয়ে কি করব ? কেশব ঈষৎ হাসিতেছেন। ঠাকুর আবার বলিতেছেন—আমার নাম কাগজে প্রকাশ কর কেন ? বই লিখে, খবরের কাগজে লিখে, কারকে