পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/৭০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ দক্ষিণেশ্বরে মণিরামপুর ও বেলঘরের ভক্তসঙ্গে ( শ্রীরামকৃষ্ণ-কথিত নিজ চরিত ) ঠাকুর স্ত্রীরামকৃষ্ণ দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে নিজের ঘরে কখনও দাড়াইয়া কখনও বসিয়া ভক্তসঙ্গে কথা কহিতেছেন। আজ রবিবার ১০ই জুন ১৮৮৩ খৃঃ অঃ, জ্যৈষ্ঠ শুক্লাপঞ্চমী বেলা ১০টা হইবে। রাখাল, মাষ্টার, লাটু, কিশোরী, রামলাল, হাজরা প্রভৃতি অনেকই আছেন। ঠাকুর নিজের চরিত্র, পূৰ্ব্ব কাহিনী বর্ণনা করিতেছেন। শ্ৰীরামকৃষ্ণ (ভক্তদের প্রতি ) –ও দেশে ছেলেবেলায় আমায় পুরুষ মেয়ে সকলে ভালবাসিত । আমার গান শুনত। আবার লোকদের নকল করতে পারতুম, সেই সব দেখত ও শুনত। “তাদের বাড়ীর বউরা আমার জন্ত খাবার জিনিষ রেখে দিত। কিন্তু কেউ অবিশ্বাস করত না ! সকলে দেখত, যেন বাড়ীর ছেলে । “কিন্তু মুখের পায়রা ছিলুম। বেশ ভাল সংসার দেখলে আনা গোনা কৰ্ত্তাম ; যে বাড়ীতে দুঃখ বিপদ দেখতুম—সেখান থেকে পালাতুম।” “ছোকরাদের ভিতর দু’একজন ভাল লোক দেখলে খুব ভাব করতুম। কারুর সঙ্গে সেঙ্গাত পাতাতুম। কিন্তু এখন তার ঘোর বিষয়ী। এখন তার কেউ কেউ এখানে আসে, এসে বলে, ওমা! পাঠশালেও যেমন দেখেছি এখানেও ঠিক তাই দেখছি।” . § “পাঠশালে শুভঙ্কর আঁক ধাধা লাগত। কিন্তু চিত্র বেশ আঁকতে ' পারতুম, আর ছোট ছোট ঠাকুর বেশ গড়তে পারতুম।” [ Fond of charitable houses ; and of Ramayana and Mahabharata ] গাৱত, অতিথিশালানৈখনে খেতুন সেখানে বেঙ্কুম গিয়ে অনেকক্ষপ ধরে দাড়িয়ে দাড়িয়ে দেখতুম।” । • f