পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/৮১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


{blյ ঐহীরামকৃষ্ণ কথামৃত—৫ম ভাগ [ ১৮৮৩ ১০ই জুন উদেপ্ত। রাজযোগের উদ্বেগু ভক্তি, প্রেম, জ্ঞান, বৈরাগ্য। রাজযোগই ভাল ।

  • বেদান্তের সপ্ত ভূমি, আর যোগ শাস্ত্রের ষড়চক্র অনেক মেলে। বেদের প্রথম তিন ভূমি, আর ওদের মূলাধার, স্বাধিষ্ঠান, মণিপুর। এই তিন ভূমিতে গুহ, লিঙ্গ, নাভিতে মনের বাস। মন তখন চতুর্থ ভূমিতে উঠে অর্থাৎ অনাহত পদ্মে, জীবাত্মাকে তখন শিখার দ্যায় দর্শন হয়, আর জোতিঃ দর্শন হয়। সাধক বলে—এ কি ! এ কি ”

পঞ্চম ভূমিতে মন উঠলে, কেবল ঈশ্বরের কথাই শুনতে ইচ্ছা হয়। এখানে বিশুদ্ধ চক্র। ষষ্ঠ ভূমি আর আজ্ঞ চক্র এক। সেখানে মন গেলে ঈশ্বর দর্শন হয়। কিন্তু যেমন লণ্ঠনের ভিতর আলো—ছুতে পারে না, মাঝে কাচ ব্যবধান আছে বলে। “জনক রাজা পঞ্চম ভূমি থেকে ব্ৰহ্মজ্ঞানের উপদেশ দিতেন। তিনি কখনও পঞ্চম ভূমি, কখনও ষষ্ঠ ভূমিতে থাকৃতেন। “ষড়চক্র ভেদের পর, সপ্তম ভূমি। মন সেখানে গেলে মনের লয় হয়। জীবাত্মা পরমাত্মা এক হয়ে যায় ; সমাধি হয়। দেহবুদ্ধি চলে যায় ; বাহশূন্ত হয় ; নানা জ্ঞান চলে যায় ; বিচার বন্ধ হয়ে যায়।

  • ত্রৈলঙ্গ স্বামী বলেছিল, বিচারে অনেক বোধ হচ্ছে ; নানা বোধ হচ্ছে।

সমাধির পর শেষে একুশ দিনে মৃত্যু হয়।” “কিন্তু কুল কুণ্ডলিনী জাগরণ না হলে চৈতন্ত হয় না!” [ ঈশ্বর দর্শনের লক্ষণ ] , “যে ঈশ্বর লাভ করেছে, তার লক্ষণ আছে। সে হয়ে যায় বালকবৎ, উন্মাদবৎ, জড়বৎ, পিশাচবৎ। আর তার ঠিক বোধ হয় ‘আমি যন্ত্র আর তিনি যন্ত্রী ; তিনিই কর্তা, আর সকলেই অকৰ্ত্তা।” শিখরা যেমন বলেছিল, পাতাটী নড়ছে সেও ঈশ্বরের ইচ্ছা। রামের ইচ্ছাতেই সব হচ্ছে, এই বোধ। উীতি যেমন বলেছিল, “রামের ইচ্ছাতেই কাপড়ের দাম এক টাকা ছয় স্থান, রামের ইচ্ছাতেই ডাকাতি হলো ; রামের ইচ্ছাতেই ডাকাত ধরা পড়লে ।