পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


* ঐশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত-৫ম ভাগ { ১৮৮৩ জুন আকাশে ওত প্রোত’ হয়ে আছেন, তিনিই কি শস্বরূপে স্ত্রীরামকৃষ্ণকে স্পর্শ করিতেছেন। এই কি শব্দ ব্ৰহ্ম । * & কিয়ৎক্ষণ পরে ঠাকুর আবার কথা কহিতেছেন।” শ্রীরামকৃষ্ণ—যারা যারা এখানে আসে তাদের সংস্কার আছে ; কি বল ? মাষ্টার–আজ্ঞে হা । ঐরামকৃষ্ণ—অধরের সংস্কার ছিল। মাষ্টার—তা আর বলতে । খ্রীরামকৃষ্ণ—সরল হলে, ঈশ্বরকে শীঘ্র পাওয়া যায়। আর দুটাে পথ আছে, সৎ অসৎ। সৎ পথ দিয়ে চলে যেতে হয়। মাষ্টার-আজ্ঞে হ, স্বতের একটু আঁস থাকলে স্থচের ভিতর যাবে না। [ সৰ্ব্বত্যাগ কেন ? ] ঐরামকৃষ্ণ—খাবারের সঙ্গে চুল জিবে পড়লে, মুখ থেকে সব শুদ্ধ ফে দিতে হয় । মাষ্টার—তবে আপনি যেমন বলেন, যিনি ভগবান দর্শন করেছেন, তাকে অসৎ সঙ্গে কিছু কৰ্ত্তে পারে না। খুব জ্ঞানাগ্নিতে কলা গাছটা পৰ্য্যন্ত জলে बांग्न ! [ শ্রীরামকৃষ্ণ ও শ্ৰীকবিকঙ্কণ—অধরের বাটীতে চণ্ডীর গান ] আর একদিন ঠাকুর কলিকাতায় বেনেটোলায় অধরের বাড়ীতে আসিয়াছেন। আষাঢ় শুক্লা দশমী, ১৪ই জুলাই ১৮৮৩, শনিবার। অধর r ঠাকুরকে রাজনারা’ণের চণ্ডীর গান শুনাইবেন । রাখাল, মাষ্টার প্রভৃতি সঙ্গে আছেন। ঠাকুরদালানে গান হইতেছে। রাজনারা’ণ গান ধরিলেন—

  • "এতস্মিন থলু অক্ষরে গাৰ্গি আকাশ ওতশ্চ প্রেতিশ্চ । বৃহদারণ্যকৃ—৩৮৷১১

শব্দ: খে পৌরুষং নৃবু। গীতা—৭৮