পাতা:শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃত পঞ্চম ভাগ.djvu/৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুর্থ পরিচ্ছেদ বলরামমন্দিরে ঈশ্বর দর্শন কথা [ {otoGsä &Woj—The End of Life আর একদিন ১৮ই আগষ্ট, ১৮৮৩, ২রা ভাদ্র শনিবার, বৈকালে বলরামের বাড়ী আসিয়াছেন। ঠাকুর অবতার তত্ত্ব বুঝাইতেছেন। প্রীরামকৃষ্ণ ( ভক্তদের প্রতি)—অবতার লোক-শিক্ষার জন্য ভক্তি ভক্ত নিয়ে থাকে। যেমন ছাদে উঠে সিড়িতে আনাগোনা করা । অন্য মাছুষ ছাদে উঠবার জন্ত ভক্তিপথে থাকবে ; যতক্ষণ না জ্ঞান লাভ হয়, যতক্ষণ না সব বাসনা যায়। সব বাসনা গেলেই ছাদে উঠা যায়। দোকানদার যতক্ষণ না হিসাব মেটে ততক্ষণ ঘুমায় না। খাতায় হিসাব ঠিক করে তবে ঘুমায় ! ( মাষ্টারের প্রতি )—“বীপ দিলে হবেই হবে । বাঁপ দিলে হবেই হবে । *আচ্ছা, কেশব সেন, শিবনাথ এরা যে উপাসনা করে, তোমার কিরূপ বোধ হয় ?” : মাষ্টার-আজ্ঞে, আপনি যেমন বলেন, তারা বাগান বর্ণনাই করেন, কিন্তু বাগানের মালিককে দর্শন করার কথা খুব কমই বলেন। প্রায় বাগান বর্ণনায় আরম্ভ আর উহাতেই শেষ। . ঐরামকৃষ্ণ—ঠিক ! বাগানের মালিককে খোজা আর র্তার সঙ্গে আলাপ করা এইটেই কাজ। ঈশ্বর দর্শনই জীবনের উদেশ্ব। * বলরামের বাড়ী হইয়া এইবার অধরের বাড়ী আসিয়াছেন। সন্ধ্যার পর অধরের বৈঠকখানায় নাম সঙ্কীৰ্ত্তন ও নৃত্য করিতেছেন। বৈষ্ণবচরণ কীৰ্ত্তনীয়া গান গাইতেছেন। অধর, মাষ্টার, রাখাল প্রভৃতি উপস্থিত আছেন। §h • ‘আন্ম বা অরে দ্রষ্টব্য: শ্ৰেতহ্যে, মন্তব্যে নিখিাসিতব্য’। বৃহদাক্ষঙ্কি-se৬