পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/১৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


msnm -z- - ילאצ ཀ་ལའཁ་འབའབའ་ལ་བཀལ་བའབ- པ་ཐན་བ་འབབ་ལ་ JoyBot (আলাপ) ১২:০৮, ৫ এপ্রিল ২০১৬ (ইউটিসি) ----------------------- মৃত্যুঞ্জয় দশরথ আসি তার স্থান। সবে বলে করহ মায়ের স্তষ্ঠ পান ॥ অত্রর বিশ্বাস রামকুমার বিশ্বাস। দুগ্ধ পান করে সবে প্রেমেতে উল্লাস ॥ পাগল ধরিয়া সেই অম্বিকীর মুখে । দুগ্ধ পান করে আর ম৷ বলিয়া ডাকে ॥ বলে মাগে৷ এই বীর হইবি গর্ভিণী । ছেলে হবে তার নাম রাখিও অশ্বিনী ॥ জয় হরি গৌরহরি বলি এই বোল। সেখান হইতে যাত্রা করিল পাগল ॥ পুনরায় সবে লয়ে গেল কলা তল । সেখান হইতে করে ওঢ়ার্কান্দী মেলা ॥ গোলোক পুলক আদেশিল স্বপ্নাদেশে। রসন। রসনা লুব্ধ ভাসে প্রেমরসে ॥ জলে স্থলে নাম সংকীর্তন । পয়ার মতুয়ার গণ সব করিল গমন । পদব্রজে চলেযায় বহুতর জন ॥ পাচ হাত মুখে এক নৌকা সাজাইয়ে। উত্তর দেশীয় সবে যায় তরী বেয়ে اما কীৰ্ত্তন করিছে সবে বাজাইছে খোল । তার মধ্যে কেহ উঠে বলে হরি বোল ৷ যে নায় উঠিলে লোক ধরে ত্ৰিশজন। সে নৌকায় লোক উঠে বিয়াল্লিশ জন ॥ বার চৌদ্দ জন লোক হইয়াছে বেশী ! নাম সংকীৰ্ত্তন করে হ’য়ে মিশামিশি। দুই নৌকা জুড়ি বাহে কেহ মারে লম্ফ। তাহাতে নদীর জল হইতেছে কম্প ॥ গোস্বামী গোলোক নাচে আনন্দহদয় । কতু আগ নায় কভু যান পাছ নায় ॥ গায় গায় মিশামিশি লোক সব ভীড় । তার মধ্যে গোস্বামী উন্মত্ত নহে স্থির ॥ সকল মতুয়৷ নাচে করি জড়াজড়ি। তার মধ্যে গোস্বামী করেছে দৌড়াদৌড়ি । হাতে হাতে ধরাধরি হইয়। সবtয়। তার নীচ দিয়া প্রভু যান আগানায়। যখনে সকলে বসি নাম পদ গায় । লম্ফ দিয়া গোস্বামী পড়েন পাছ নায়। শ্ৰীশ্ৰীহরিলীলামৃত । নদীমধ্যে যত লোক নৌকা পরে ছিল । আশ্চৰ্য্য মানিয়া সবে নিকটে আসিল । সব নৌকা গিয়া গোস্বামীর নৌকা ধরে। সঙ্গে সঙ্গে তাহারাও হরিনাম করে ॥ যত সব বাজে নৌকা হ’ল আগুয়ান । সবে বলে হরি হরি হিন্দু মুসলমান। জলমগ্ন লোক যেন ভুলে খায় জল। তেমনি সকলে বলে বল হরিবল ॥ পদ ধরি গান করে ঈশ্বরাধিকারী। উঠেছে তরঙ্গ নাচে মধুমতী নারী। অক্রর বিশ্বাস আগ। নৌকার চরাটে। দাড়ায়ে কীৰ্ত্তন করে হাতে ল’য়ে বৈটে ॥ হাতে বৈটা লম্ফ দিয়া নেচে নেচে উঠে । গোস্বামী লাফিয়া পড়ে তাহার নিকটে ॥ পাগল গুইয়া পড়ি ডাকে হরিচাদে । অত্রর দাড়ায়ে তার দুই পৃদ্ধ মধ্যে। যেন দুই দাড় দুই পাশ্বে নৌকা বায়। হস্ত দিয়৷ সেই মত নৌকা টেনে যায় ॥ চারি ছয় দাড়ে নৌকা যেই মত চলে । সেই মত নৌকা চলে হস্ত টান বলে ৷ গোস্বামীর নৌকা সঙ্গে যত নৌকা ধর । সব নৌকা সেই মত চলিল সুধার ॥ যত নৌকা ধরাধরি করিছে আসিয়ে । বাহা জ্ঞান নাহি কারু প্রেমে মত্ত হ’য়ে ॥ সময় সময় কারু বাহস্থতি হয়। চাহিলে পাগল পানে তাহ। ভুলে যায়। হেন কালে জয়পুরবাসী চারি জন । হৃদয় সীতানাথ ভোলানাথ রাইচরণ ॥ ষোল হাত দীর্থে নৌক প্রস্থে নয় পোয় । হরিধ্বনি শুনি চারি জন দিল বাওয়া । বহু পরিশ্রমে নেীক ধরিল আসিয়া । ঠেকাইল নেীক আগানার তল দিয়া ॥ কেহ বলে সর বেটা মরিতে আসিলি । নৌকার গলুইর তলে নৌকা কেন দিলি । আসিলি নৌকার তলে ডুবিয়া মরিতে। ভোলানাথ বলে মোরা এসেছি ডুবিতে ॥ গোস্বামী বলেছে বাছ কে ডুবিতে চাও। অকুর বিশ্বাস কহে জয় পুরে নাও । লম্ফ দিয়া উঠিলেন গোসাই গোলোক । জয়পুরে নাও যদি এইত তারক ॥