পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/১৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


つ মধ্য খণ্ড । - >○○ হুহু শব্দ করি অগ্নি জ্বলে অবিরাম । রাই করে শোর শব্দ পুড়িয়া মলেম ॥ গৃহ মধ্যে গিয়া বলে পাগল গোসাই। শুয়ে থাক রাই তোর কোন চিন্তা নাই । বাহির হইয়া রাই দেখে অকস্মাৎ । আগুণ হ’য়েছে উৰ্দ্ধ আট দশ হাত ॥ যে খানের অীগুণ নিৰ্ব্বtণ সেখানেতে । ঘর বেড়া কিছু না পুড়িল আগুনেতে ॥ পাগল কহিল রাই চরণের তরে । যাও যদি ওঢ়াকাদি এস সুমি ভারে ॥ তাহাগুনি ভাসে রাই প্রেমের তরঙ্গে । প্রভাতে চলিল রাই পাগলের সঙ্গে ॥ পাগল আসিয়৷ বামুড়িয়া গ্রামে রয়। রাই চরণকে কহে যাও নিজালয়। কাছারী হইতে এক পোয়াদ আসিয়া। রাই চরণকে নিল কাছারী ধরিয়া । নায়েব কহেন কেন গাছ কেটেছিস্ । গ্রামীর জুঠিয়া সবে করিছে লালিশ ৷ আগুণ জালালি কেন ঘরের বেড়ায়। তুই পুড়ে যা’স মোর গ্রাম পুড়ে যায়। রাই কহে আমি এর কিছুইন জানি । ভাবের পাগল এক তার কথ। শুনি ॥ সেই কহে তাল গাছ কাটিবার তরে। গাছ কাটিয়াছি তার বাক্য অনুসারে ॥ গাছের বাগুয়৷ পাত ঘরের পিছনে। রাখিয়া ছিলাম পোত বেড়ার সংলগ্নে ॥ রাত্রি যোগে ছিনু আমি ঘরেতে শুইয়া। . পাগল আসুিয় দেয় আগুণ জালিয় ॥ বাগুয়া পুড়িয়া তার পাতা পুড়ে গেল। আট দশ হাত অগ্নি উৰ্দ্ধেতে উঠিল। চালের উপর দিয়া অগ্নি বায়ূলায়। আগুণ দেখিয়া আমি করি হায় হায় ॥ ভয় নাই কহে মোরে পাগল গোসাই । , তাল পাতা পুড়ে গেল ঘর পুড়ে নাই ॥ বাবু কহে পাগলের কার্য্যে দোষ নাই । ঈশ্বরের তুল্য ব্যক্তি পাগল গোসাই ॥ তোমার নাহিক দোষ যাও নিজ ঘরে। পাগলে কহিও যেন দয়া থাকে মোরে ॥ কৰ্ম্ম কওঁ। হরি পাগলের ঠাকুরালী। এত দিনে শক্র মুখে প’ল চুণ কালি ৷ [ -- )

পাগলে ভাবিয়া রাই উঠে কাদি কাদি ৷ চারি দিন পরে যাত্র কৈল ওঢ়ার্কাদি ॥ দেখিয়। ঠাকুর রাই চরণে জিজ্ঞাসে । অদ্য বাছ ওঢ়ার্কাদি এলে কি মানসে ॥ রাই কহে শ্ৰীচরণ দর্শন আশায়। মহাপ্রভু বলে বৎস! তাহা বুঝি নয়। মোর প্রতি ভক্তি তোর আছে ত নিশ্চয়। এবে আলি গোলোকেরে দেখিতে আশায় ॥ যেই ভক্ত সেই আমি গ্রন্থে লেখে স্পষ্ট । গোলোকে সেবিলে আমি আরো বেশী তুষ্ট ॥ বাড়ী ছিল তাল গাছ কেটেছিস্ নাকি । আগুণে পুড়িশ নাই শুনে হৈন্থ মুখী। যাহা হো’ক তাহ হো’ক তোমার সৌভাগ্য। হ’য়েছে তোমার বাড়ী রাজস্থয় যজ্ঞ ॥ যা করে গোলোক আমি করি সেই কাজ । পয়ার প্রবন্ধে কহে কবি রসরাজ । গোস্বামীর দক্ষিণদেশ ভ্রমণ । পয়ার । কিছুদিন ওঢ়াকাদি করিয়া বিশ্রাম । পাগল চলিল পুন গঙ্গাচর্ণ গ্রাম ॥ যাওয়া মাত্র রাই চরণকে ডেকে কয় । বইবুনে যাইব আমার সঙ্গে অtয় ॥ অমনি চলিল রাই পাগল সঙ্গেতে । চলিলেন পাগলামি করিতে করিতে ॥ জয় হরি বলরে গেীর হরি বল। * রাম জয় ধ্বনি করি চলিল পাগল ॥ ধ্বনি শুনি লোক সব হৈল চমকিত। মাঠি ভাঙ্গা হাটখোলা হৈল উপনীত ৷ গোপালবিশ্বাস উমাচরণবিশ্বাস । পাগলকে দেখে মনে বাড়িল উল্লাস ॥ উথলিল প্রেম বন্যা করিছে রোদন। পাগলকে করিলেন অর্চন বন্দন ॥ জয় হরি গৌর হরি বলে বার বার। সিংহের গর্জন সম দিতেছে হুঙ্কার। গোপালবিশ্বাস উমাচরণ কহিছে। ই বাজারেতে এক দারগ৷ এসেছে। নু এক মোকদম আসামী ধরিতে। নরহত্য আসামীর আস্কর করিতে। .