পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/১৯৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নিতে তোমাদের দেশে, ལེགས ཤཱ་ལྕགས་ཀྱི་ཤི་རྨི་ཨཱུ་རྀ་རཱྀ:! মনে যা ভেবেছি আমি, অন্ত খণ্ড । እbሥ¢ অগাধ জলের পরে, হাটিয়া গমন করে, মৃত্যুঞ্জয় তরী বেয়ে যায়। গোস্বামীর সন্নিকটে, - সে সময় জলে সাতরায় ॥ নৌকা পরে রেখে ব’টে, . মৃত্যুঞ্জয় কহিছে তখন। “বলে গোস্বামীর ঠাই, মোর দেশে চল যাই, r তরী পরে করি আরোহণ ॥ হীরামন বলে দাদা, নিজতরী বাহি সদা, তরঙ্গিনী নীরে ডুবি ভাসি। ইচ্ছ। যদি মনে আসে, তবে তোমাদের নায় আসি ॥ ধরি, : উঠাইল যত্ন করি, তি তরী বেয়ে যায় । হীরামন ঝাপ দিতে চায় ॥ মৃত্যুঞ্জয়, . নামিওন ধরি পয়, মামিলে পাইব বড় শোক। খিলিঙ্গ, তুইত আমারে নিস্, " অপমারে ত নেয়না গোলোক ॥ মৃত্যুঞ্জয় উচাটন, । গোলোক ধরে চরণ, কাদিয়া কহিছে উচ্চৈঃ স্বরে। জানিয়া আমার মন, গোসাই নামে এখন, কাজ কিবা এ জীবন ধরে। গোসাইত অন্তৰ্য্যামী, অন্তরেতে জানিয়া সকল। এই নদী দিয়া পাড়ি, আগে য’াব মম বাড়ী, বাড়ী নিব লেংটা পাগল ॥ - লেংটা এনে দিলে কেহ, পরিতে বলিলে সেহ, ওত কারু কথা ন মানিবে। যদি লেংটা নাহি পরে, গেলে বাড়ীর ভিতরে, মেয়ে লোকে দেখে লজ্জা পাবে ॥ ন। বুঝিয়া পাই কষ্ট, হারে মোর দূরদৃষ্ট, কৰ্ম্ম জালে বন্দি হইলাম । অষ্ট পাশ মুক্ত যিনি, অন্তৰ্য্যামী শিরোমণি, হেন পদ পেয়ে হীরা’লীম ॥ গোপাই কহিছে দাদা, ইদলে গাধার বাধা, - খাদী আঁধা দেহ নমাইয়া। দেহ পড়ি দেহ পড়ি, মাসী বাড়ী মাসী বাড়ী, * স্বৰ্য্য মাসী আছে ডুমুরিয়৷ . [ २8 ] প্ৰভু ধর্চ যবে তরী বেয়ে উঠে,> গলে বাস কর পুটে, নদী মাঝ খানে শেষে, গোসাই উলঙ্গ বেশে, লেংটা পরি অবশেষে, স্বৰ্য্য নারায়ণ-বাসে, গোসাই যাই। বসলেন। মাসী কই মাসী মই, অtয় মাসী দেখে যাই, গোঁসাই ডাকিতে লাগিলেন ॥ স্বৰ্য্য নারায়ণ এসে, দণ্ডবৎ হ’য়ে শেষে, কর যোড়ে রহে দাড়াইয়া । গোসাই কহেন মাসী, তোরে বড় ভাল বাসি, মাসী মীরে দেহ ডাকাইয়া ॥ পাতলার মাসী যিনি, তাহারে কর রাধুনি, শীঘ্র তাড়াও গৌরের মেয়ে। বাজারে হয়েছে টান, পাতলা পাত দোকান, ক্রয় বাণ ফিরিয়া না যায়ে ॥ স্বৰ্ঘ্য হয়ে অতি স্ত্রস্ত, এনে এক নব বস্ত্র, গোস্বামীকে দিল পরাইয়। লেংটা পড়িয়া ছিল, ” তারক তুলিয়৷ নিল, লইলেন মস্তকে বধিয়া ॥ গোস্বামী বলে ডাকিয়া, সকলে লহ ভাগিয়া, , লেংটা ধরি করে কড়াকড়ি। সবে করে ধরাধরি, একটু একটু করি, সকলে সে লেংটি নিল ফাড়ি । কেহ গলে ঝুলাইল, কেহ মস্তকে বঁধিল, প্লীহা কি যকৃত ছিল যার । কারু ছিল কাশী জরা, ধারণ করিল যারা, - দুই দিনে রোগারোগ্য তার ॥ বসন ফেলিয়ে দিয়ে, গোসাই উলঙ্গ হয়ে, যে সময় যাত্রা করিলেন । মেয়ে লোক যতছিল, গোস্বামীর কাছে এল, প্রণামী শ্ৰীপদ সেবিলেন । গোলোক বিশ্বাস এসে, এমন সময় উপনীত । গোস্বামীর পদধরে, মেয়ের রোদন করে, দেখিয়া গোলোক চমকিত ॥ গোলোক বিশ্বাস কাদে, ধরিয়া গোস্বামী পদে, . গোসাঁই কহিছেরে গোলোক। যাইতাম তোর ঘরে, তুই নিলিনা আমারে, দেখিয়া নিন্দিবে যত লোক । তোর বাড়ী যত নারী, তাহারা লজ্জিত ভারি, ! নিলজি লোকের বাড়ী যাই । মাসী বড় ভাল বাসে, আসিয়া মাসীর বাসে, to মাস্টীমার হাতে তাল খাই ॥