পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/১৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অন্ত খণ্ড । ➢brፃ দুজনার প্রেমোৎসবে, হরি হরি বল সবে, ক্রমে মহাভাবে তন্তু মন শিহরিল। কহে দীন কবি রসরাজে ॥ চিত হ’য়ে কুষ্মাণ্ডের মত পড়ে গেল। - - কুস্তকার চক্রাকার লাগিল ঘুরিতে । - এইপদ কোথ রাখি লাগিল বলিতে ॥ হীরামন গোস্বামীর পদুম ও পদ রাখিয়াছি আমি হরিলুঠ স্থানে । -লোকে মন্দ বলে কাৰ্য্য মন্দ সে কারণে ॥ কালী নগরলীলা । হরি ছাড়া স্থান আমি পাইব কোথায় । পয়ার । কোথায় রাখিব পদ না দেখি উপায় ॥ ত্রহীরামন গোস্বামী পদুম গ্রামেতে । সূক্ষ্ম জ্ঞান ভাব মোরে নাহি দিল হ’রে । আসিলেন ফোরাম জীবিত থাকিতে। কি উপায় করি তোরা বলে দে আমারে ॥ বিকালে এল গোসাই বিশ্বাসের বাসে । - হরি ছাড়া স্থান তোরা দেখায়ে দে ভাই । গোসাই দেধিতে লোক বহুতর আসে। কোনস্থানে পদ রাখি ওঢ়াকাদি যাই ॥ পার্শ্ববৰ্ত্তী লোক সব পুরুষ বা নারী। কাঙ্গালী হইয়। ভীত পড়িল কঁাদিয়ে। আসে যায় সবে কয় হরি হরি হরি ॥ ফেলারাম কুশাই কেন্দেছে দাড়াইয়ে ॥ --কহিলেন ফেলারাম বিশ্বাস কুশাই। - রায়চাঁদ রায় পুত্র কোদাই নামেতে । কৃতাৰ্থ হইনু অদ্য মোরা দুটি ভাই । পদতলে প'ল চ'লে কঁদিতে কঁদিতে ॥ ফেলারাম কহিলেন কুশাইর স্থানে । সবে হরি হরি বলে করে কাদার্কাদি । a • গোসাই এসেছে কিছু লুঠ দেও এনে ॥ হীরামন কহে ভক্ত হৃদি ওঢ়ার্কাদি ৷ * আগমনে সংকীৰ্ত্তন আরস্তিল সবে। তুলসী কানন, পদ্ম বন, সংকীৰ্ত্তন। যাবার বেলায় এর লুঠ নিয়া যাবে ॥ - সেইস্থানে হরি বিরাজিত সূৰ্ব্বক্ষণ ॥ . আনাইল বাতাসা হরির লুঠ দিতে। বিধির নিৰ্ম্মিত পদ বল কোথ। রাখি । - রাখিল কীৰ্ত্তন মাঝে আনন্দ করিতে ॥ " আমি বোক হরি ছাড়া স্থান নাহি দেখি ॥ | লেপন করিয়৷ ঠাই আসন সাজিয়ে । আমি বোকা আর বোকা ছিল বৃকোদর } তুলসী, কুসুম, আসনের পর দিয়ে। মল ত্যাগ না করিল দ্বাদশ বৎসর ॥ উঠিল পরমানন্দ কীৰ্ত্তনের রোল । নামাইয়া পদ দুটি উঠে লম্ফ দিয়ে । ঘুরিয়া ফিরিয়া সবে রলে হরিবোল। সংকীৰ্ত্তন মাঝে লুঠ দিল লুটাইয়ে ॥ কীৰ্ত্তনের মাঝে বসি হাসিছে গোসাই । প্রেমে মত্ত্ব হয়ে হ’ল সেই নিশীভোর । , বুকে পদ লুঠে প’ল স্মৃতি জ্ঞান নাই। মৃত্যুঞ্জয় সঙ্গে এল সে কালীনগর। স্বরুপের জ্যেষ্ঠ পুত্র কাঙ্গালী মণ্ডল । তথা এসে বাল্য সেবা নিলেন গোঁসাই। গলে বস্ত্র কর যোড়ে কহে স্তুতি বোল ॥ কহিছেন পুন আমি পদুমায় যাই ॥ আপনিযে উলঙ্গ।উন্মত্ত নাম গানে। প্রহরেক কালীনগরের বাড়ী ব’সে । হরিলুঠে পদ লাগে ভয় হয় মনে ॥ উলঙ্গ হইয়া জলে ঝাপ দিল শেষে ॥ কথা শুনি লুঠ পানে করে দৃষ্টিপাত। কালীনগরের নদী পার হইলেন। পদটান দিতে বাধা হ’ল অকস্মাৎ ॥ উত্তরাভিমুখে পদুমায় চলিলেন। হীরামন বলে মোর হরি সর্বময় । তারক শ্ৰীষ্কৃত্যুঞ্জয় দিলেন সাতার । অনুলে অনিলে জলে স্থলে শূণ্ঠে রয়। পিছে পিছে চলিলেন আনন্দ অপার ॥ বল শুনি তবে পদ রাখি কোন খানে। পিছে পিছে নেচে গেয়ে দুইজন চলে। । তোরা পদ রাখ-হরি নাই যেইস্থানে ॥ ঢেউ লাগে কালীনগরের নদীকূলে ॥ লুঠ হরি, পদ হরি, রাখিব কোথায়। পদুমায় চলিলেন ফেলারাম বাটী। এত বলি দুটি পদ লইল মাথায় ॥ পশ্চাতে তারক মৃত্যুঞ্জয় এই দুটি ৷