পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/২০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ఢీసీను পথ হতে আগুলিল গোস্বামী গোলোক । ঐশ্ৰীহরিলীলামৃত রচিল তারক ॥ শ্ৰীমত্তারকের বিবাহ। পয়ার । তারকের বিবাহ করিতে ইচ্ছা নাই। বিবাহ করিতে হবে কহেন গোসাই । অনেকে অনেক কহে বিয়া করিবারে । আজীবন তারকের প্রতিজ্ঞা অন্তরে ॥ বিবাহ করিতে প্রভু বল কি কারণ। না করিব বিবাহ করেছি এই পণ ॥. প্রভু কন যদি এই ভবে আসিলাম। ভাবি মনে এক খেল খেলিয়া গেলাম ॥ " চতুৰ্ব্বিধ ধৰ্ম্ম মধ্যে প্রধান গার্হস্থ্য । গৃহস্থ ধাৰ্ম্মিক কৰ্ম্ম অতি স্বপ্রশস্ত । লোকে কহে ভ্ৰমি বারো ঘৱে বসি তের। এ বার গৃহস্থ ধৰ্ম্ম যোগে যত পার। তারক বলেন হরি বিবাহ করিব ॥ গৃহিণী গ্রহণ কৈলে পাশ-বদ্ধ হ’ব। অর্থ লোভে নারী লোভে কামাশক্ত হ’য়ে। তব নাম প্রেম সব যাইব ভুলিয়ে ॥ প্রভু কন মম বাক্যে বিবাহ করিলে । নাম প্রেম বৃদ্ধি হ’বে মম বাক্য বলে। আমারে আদর করি করে পাপকৰ্ম্ম । আমার ইচ্ছায় সেই হয় মহাধৰ্ম্ম ॥ মোরে অনাদর করি করে মহাধৰ্ম্ম । আমার ইচ্ছায় সেই হয় পাপকৰ্ম্ম ॥ এ বড় নিগৃঢ় তত্ত্ব প্রভু মুখ বাক্য। তদ্রুপ আমার বাক্য হৃদে কর ঐক্য। যদি অর্থ নারী লোভে মোরে ভুলে যাবি। তবু মম দয়া বলে আমাকে পাইবি ॥ তারক কহিছে মোর অর্থ কিছু নাই । কেনা বেচা করি দিন আনি দিন খাই ॥ প্রভু হরির্চা কহে তাতে কেন ভাব। যত অর্থ লাগে তাহা আনি তোরে দিব ॥ বিবাহ করিতে প্রভু কন বার বার। তারক বলেন যেই ইচ্ছ। আপনার ॥ আসিলেন মৃত্যুঞ্জয় স্বৰ্য্যনারয়ণ । প্রভু দুজনারে কহে সব বিবরণ। ঐত্রহরিলীলামৃত। তোমরা দুজনে যাও সম্বন্ধ করিতে । অগ্রে যাও গঙ্গারামপুর গ্রাম মাঝ । যে মেয়ে শুনিবে কথা ক’র সেই কাজ ॥ তারক চলিল দুজনারে সঙ্গে ল’য়ে। গঙ্গারামপুর গ্রামে উতরিল গিয়ে । সনাতন পাটনী সে দেখিতে পাইল। সমাদর করি তার বাট ল’য়ে গেল ॥ বলে দয়া করি হেথা করুণ ভোজন ! সনাতন_করিল_পাকের আয়োজন ॥ সেই গ্রামে শ্ৰীগোবিন্দ নামে ভট্টাচাৰ্য্য ; তার বাট হইতেছে তুলটাদি কাৰ্য্য। একমাস পুথি হ’ল অদ্য উদ্‌যাপণ। এই বাড়ী পুথি হবে কহে সনাতন ॥ সেই বাড়ী চলিলেন পুথি শুনিবারো" চারি জন একঠাই বসে একত্তরে ॥ পুথি কহে কথক বসিয়া ব্যাসাসনে । মহাপ্রভু হরিচাদ বসে সেই খানে ॥ মৃত্যুঞ্জয় বিশ্বাস স্বচক্ষে দেখে তাই। সেই পাঠ সাঙ্গ হ’লে আর দেখা নাই ॥ মধ্যাহ্ল ভোজন করি ভাঙ্গুড় আইল । কৃষ্ণ মোহনের বাড়ী উপনীত হ’ল। বলিলেন মৃত্যুঞ্জয় কৃষ্ণ মোহনেরে । এক মেয়ে চাহি মোরা এ ছেলের তরে ॥ কহে ন কৃষ্ণমোহন আছে এক মেয়ে। ছেলের লবে না মন সে মেয়ে দেখিয়ে ॥ মৃত্যুঞ্জয় বলে মোর শ্রীমতী ন চাই । কথা যদি শুনে তবে মেয়ে ল’য়ে যাই । আসিবার কালে ব’লে দিলেন ঠাকুর। মেয়ে দেখিবারে যাও গঙ্গারামপুর ॥ মেয়ে দেখে তথা হ’তে ভাঙ্গুড় যাইও । । যেই মেয়ে কথা শুনে সে মেয়ে আনিও ॥ কৃষ্ণমোহন বলে আমি সাথে সাথে যা’ব । কি লইয়া যাবে তথা সম্বন্ধের ভাব ॥ বাতাসা লইতে হ’বে সে বাড়ী যাইতে । তারক বলিল কপর্দক নাই সাথে ॥ সোয়াসের বাতস লাগিবে পাচআনা। অবাক হইয়। বসি র’ল তিনজনা ॥ حسیر 4