পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/২৫১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নিবারণ শীতল কাৰ্ত্তিক বুতিকান্ত । সাধু মহাজন প্রতি ভকতি একান্ত । তারকের শিষ্য পুত্ৰী সুমতী শ্ৰীমতী । পাগলেকে ধরিলেন সেই গুণবতী ॥ • মুকচাদ কানাই নিমাই কয় ভাই । D নাচিছে কীৰ্ত্তনে আন স্বর সীমানাই ॥ তাহাদের ভগ্নি ধনী বসন্ত নামিনী। । হরি বলে পাগলে ধরিল সেই ধনী ॥; পাগল তখনে দুই বাহু প্রসারিয়া। ; সেই দুই মেয়েকে ধরিল সাপুটিয়৷ অজ্ঞান হইয়া দোহে ঢলিয়া পড়িল । যেন ভদ্রে বাণ ডেকে ভাসাইয়৷ নিল ॥ পূর্ণ অধিকারী হরিপাল পড়ে তথি । মূৰ্ছা প্রাপ্তে পড়িল অক্ষয় চক্ৰবৰ্ত্তী । কে কারে কি করে পড়ে কেব। কার গায়। কি সুখ বাড়িল সুকচাদের আলয় ॥ মদন বিশ্বাস এক পদ ধরি এল। নিল প্রাণ নিলরে গৌরাঙ্গ রূপে নিল । গৌরাঙ্গ দাড়ায়ে অই সুরধুনী কুলে। চল গে৷ সজনী চল যাই গো সকলে । জল আনা ছল করি চল ন’দে বাসী। জল আন ছলেতে গৌরাঙ্গ দেখে আসি ॥ এতেক বলিয়া কক্ষে লইল কলসী । চল গিয়া গৌরাঙ্গ চরণে হই দাসী । সবে মিলে হ’ল যেন উন্মত্ত পাগল। নর নারী বাল্য বৃদ্ধ বলে হরি বোল ॥ কেহ কেহ উঠে গিয়া বসিল গৃহেতে। কেহ নৃত্য করে অন্তঃপুর প্রাঙ্গণেতে ॥ প্রেমাবেশে বাল্য বৃদ্ধ যুবা নর নারী। সবে মিলে অম্লান অন্তরে ধরাধরি ॥ স্ত্রী পুরুষ ধাববান হ’ল একেত্রেতে। এক এক জল পাত্র লইল কক্ষেতে ॥ কেহ ধায় এল কেশে কেহ ঘোমটা টানে। পুরুষে ঘোমটা দেয় কোচার বসনে ॥ পুরের মধ্যেতে কেহ হ’তে নারে স্থির । বাহির বাটতে সব হইল বাহির । মতুয়ার রামগণে ধরিয়া ধরিয়া। . . বাড়ীর উপরে সবে রাখে ঠেকাইয়া ॥ কতক মতুয়াগণ বাড়ী দিকে ধায়। ; নিবারণ শীতলের বাটতে উদয় । শ্ৰীশ্ৰীহরিলীলামৃত । - কেহ কয় গঙ্গাতীরে উদয় অরুণ । , কেহ কয় অক্ৰুণের চরণে বরুণ ॥ কেহ কয় তবে জল নিতে হ’ল ভাল । গৌরাঙ্গ অরুণ পদে বরুৎ পাড়িল । তরুণ অরুণ সঙ্গে চন্দ্ৰ যোগাযোগ । কেহ বলে এই সেই পুষ্প বস্ত যোগ । কেহ বলে তার মধ্যে গঙ্গ। মুরধুনী । কেহ বলে এই যোগ বেগে চূড়ামণি ॥ কেহ বলে ভাসিয়া গেলাম অশ্রুজলে। কেহ বলে দেখা কি পাইব গঙ্গাকুলে ॥ কেহ বলে নাহি পেলে জাহ্র বীর কুলে । কেহ বলে তবে দাসী হইব কি ছলে ॥ " কেহ কেহ তুলে নিল কক্ষেতে কলসী । কেহ বলে হইব গৌরাঙ্গ পদে দাসী ॥ কেহ পিত্তলীয় কুম্ভ করিয়াছে কক্ষে । কেহ নাচে মেটে কুম্ভ কক্ষ পরে রেখে ॥ কেহ বাহিরের কুন্ত পূর্ণ কিম্বা খালি । কেহ তার একটা লইল কক্ষে তুলি । কৈহ বলে ক্ষান্ত না করি ও সংকীৰ্ত্তন। কেহ বলে ধৰ্ব আই গোঁহুংঙ্গ চরণ ॥ কেহ নাচিয়া গাইয়া চলেছে কাদিয়া । কেহ কার গল্প পড়ে হেলিয়া দুলিয়া ॥ কেহ যায় স্বনে কালীগঙ্গ। মরানদী । কেহ সেই ঘটে গিয়া করে কঁদ কাদি । কেহ কেহ বলিতে সকলে ঘাটে গেল । কেহ বলে কেগে। অই বর্ণ যেন কাল ॥ কেহ বলে গের ছবি প্রাতরবি প্রায় । কেহ বলে কালশশী তাতে মিশি ব্লয় ॥ কেহ বলে কলে গৌর মাঝেতে দাড়ায় । । কেহ কেহ বলে আই বঁাশ করে লয় ॥ কেহ বলে গোরা রূপ জলের ছায়ায় । কণক কমল কাল কমলে উদয় ॥ কাল জলে করল জ্বলে ৱেব গো কেমন । _নীলাজ হেমাঙ্গ মাঝে হয়েছে মিলন। জলে জলে জলধর দেখ সখীগণ । জলে যাই হেরি রাই খামের মিলন । , এক আমি নামি তোর না নামিস্ কেউ । দেখ রূপ জলে জ্বলে দি শুন লে ঢেউ । একা আমি বরে আনি শুমি জলধর । , নামিলে হারাবি জলে পাবিন সধর ॥