পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/২৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সেই সব ভাগীদের সঙ্গেতে করিয়৷ ডোবা নৌকা যথ তথা উতরিল গিয়া । - সেই খানে গাছ বাধা নৌকা বারোধান। । কেঁদে কহে হরিপাল বাওয়ালীর স্থান ॥ কাছি বাধা খুটি গাড়া নঙ্গর যে ছিল। . . তাহা উদঘাটিয়া নৌক মধ্য গাঙ্গে গেল ॥ গদাই বাওয়ালী অন্য লোক ল’য়ে ব’লে । নৌকা উঠাইয়। নিবে করে পরামিশে ॥ _হরিপাল বলে সেই বওয়ালীর ঠাই। حمیمہ ....... i i. \ আমি মোর ডোবা নৌকা তুলে-নিতে চাই ৷ - গদাই বলেছে নৌকা বাদায় ডুবিলে। কোন বেটা নৌকা পাইয়াছে কোন কালে । কুম্ভীর জলেতে লোণা কাঙ্গট হাঙ্গর । , এই স্থান হ’তে নৌকা কে উঠা’বে তোর ॥ হরিপাল বলে যদি তুলে দেও নৌকা । তুমি মোর ধৰ্ম্ম পিতা দিব কুড়ি টাকা । গদাই বলেছে তুমি কেন পিতা কও। ইচ্ছা থাকে কুড়ি টাকা তুমি ল’য়ে যাও। তাহাগুনি হরিপাল নিরস্ত হইল । নিজের নৌকায় এসে রাত্রিতে রহিল। "বাবা হরিচাদ ক’লে ঘন ছাড়ে হাই। - - শেষ রাত্রে চেচাইয়। উঠিল গদাই ॥ হেন কালে শব্দ হয় নৌকা ঠেকাঠেকি । জলে শব্দ উঠে ঢেউ নৌক ঢকু ঢকি ॥ গদাই বাওয়ালী বলে সবে শুনে নেও । . ' ' উঠাও পালের নৌকা যদি ভাল ছাও । এ নৌকা না উঠাইলে কারু বাচ নাই। নতুবা সকল নৌকা ডুবিবে এ ঠাই ॥. ! ব্যান্ত্ৰে চড়ি উগ্ৰএক মানুষ আসিয়ে । - প্রকাণ্ড শরীর তার কহে হুঙ্কারিয়ে ॥ " শীঘ্ৰ করি এই তরী প্রভাতে উঠাও। : নৈলে ডুবাইব সব বাওয়ালীর নাও ৷ রাত্রি পোহাইলে সবে করে ডাকাডাকি । গদাই বাওয়ালী বলে তোরা আয় দেখি ॥ জলে নক্র ক্লে ডুবাবে কে বাধিবে কাছি। : হরিপাল বলে আমি নিজে ডুবা”তেছি । ভাটার সময় ডুব দিল হরি বলে । এক ডুবে কাছি বাধি উঠিলেন কুলে। " হরিপাল বলে কাছী উপরে থাকুক। ক্ষণেকু বিলম্ব কর ধোয়ার আসুক । s হরিপালে ল’য়ে গদাবাদ মধ্যে যায় : যেtয়ার পুরিল বেলা ৱেড় প্রহরেতে। হরিপাল ধরে কাছি গম্বাইর সাথে । বাবা হরিচাঁদ বলে উৎকণ্ঠিত প্রাণ। ছয় জনে কাছি ধরি দিল এক টান ॥ হাল দাড় বাধা, গাছ নঙ্গর সহিতে। জাগিয়া উঠিল নৌকা ছই ছাপ্পরেতে ॥ গদাই বাওয়ালী বলে কিছু কাল রও। ভাটা হ’লে আপনি জাগিবে এই নাও - জল ফেলাইল সবে ভাটার সময়। ঠেলা পেলা দিয়া রাখিলেন পাছানায় পুনৰ্ব্বার যেtয়ার হইল যে সময় । সেচ হ’য়ে পুৰ্ব্ববৎ নৌকা ভেসে রয় ॥ গদাই বাওয়ালী তার এ বার্ষিক আছে। . একটা মানুষ দেয়ুশার্কুলের কাছে। হরিপাল যবে নৌকা খুলিবারে চায়। সেইদিন বাঘের বার্ষিক দিতে হয় । গদাই বাওয়ালী বলে হরিপাল শুন । টাকা দিবা বলেছিলে দেহত এখন ॥ হরিপাল বলে টাক দিব কি কারণ । নৌকা উঠাইয়া দিলে দেখিয়া স্বপন ॥ : ; শুনিয়া গদাই রাগ হ’ল অতিশয় । , মৌধিকেতে সাধু ভাষা হরিপালে কয় । আশা ছিল হরিপাল বেশে ফিরে যাবে। তারপর গদাই সে নৌকা তুলে নিবে , তাহা নাহি হ’ল অরে; টাকা নাহি দেয় 1, জানে প্রাণে মারিব বেমন দুরাশয় ॥ গদাই বলেছে হরি ধর্মপুত্ৰ তুমি । -চল বাছ চকু দেখাইয়া আনিঃআমি [ { সাধুর তরণী কভু মারা নাহি যায়। । তোম৷ হ’তে এই কথা হইল প্রত্যয় । । নৌক৷ পেলে গাছ পেলে বাপরে আমার ॥ আমার যা আছে তাহ! সকলি তোমার n · কতগুলি গাছ কাট। অাছে এই চকে । মম সঙ্গে চল বাছা বিব তা তোমাকে : . ধৰ্ম্মপুত্ৰ তুমি তোম বড় ভালবাসী ; চল যাই তোমাকে দেবী'য়ে ল’য়ে আসি৷ এই গাছ দেশে ল’য়ে যাও ওরে বাবা। . এই গাছ নামাইয়৷ সেই গাছ নিবা ॥ এত বলি দুইজনে চড়ি ডিঙ্গিনায়। : -