পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


লক্ষ্মী মাতা বলে মম বাসনা কি আর । -אה, চির দাসী অভিলাষী শ্ৰীপদ তোমার ॥ বন্দন৷ জয় জয় হরিচাদ জয় কৃষ্ণ দাস । জয় শ্ৰীবৈষ্ণবদাস জয় গোরিদাস ॥ জয় শ্রীস্বরূপদাস পঞ্চ সহোদর । পতিতপাবন হেতু হৈলা অবতার ॥ জয় জয় গুরুচাদ জয় হীরামন । জয় শ্ৰীগোলোকচন্দ্র জয় শ্ৰীলোচন ॥ জয় জয় দশরথ জয় মৃত্যুঞ্জয়। * জয় জয় মহানন্দ প্রেমানন্দময় ॥ " জয় নাটু জয় ব্রজ জয় বিশ্বনাথ । নিজ দাস করি মোরে কর আত্মসাৎ ৷ ভক্ত-গণের মহা সংকীৰ্ত্তনোচ্ছাস ॥ পয়ার । এই ভাবে হরিচাদ করে ঠাকুরালী । প্রভু-সঙ্গে ভক্ত সদা থাকে মেলামেলি। ঐশ্বৰ্য্য প্রকাশী প্রভু আসিলেন বাসে। লক্ষ্মী মাতা পদসেবা করিল হরিষে ॥ রন্ধন করিয়া ভক্তগণে ডাক দিল । ভক্তগণে হরি বলে ভোজনে বসিল ॥ ঠাকুরাণী ডাক দিয়া রামচাদে বলে। তিন চারি মাস বাপ কোথায় বেড়া’লে | তোমরা বেড়াও সদা বলে হরি বোল। কোথায় পাইলে বল এ দ্রব্য সকল ॥ রামচাদ বলে তুমি গুন লক্ষ্মী মাতা । তোমার কৃপায় পাই আর পা’ব কোথা ॥ প্রভু বলে রামচাদ বলু তোর মাকে। সৰ্ব্ব ফল ফলে এক কৃষ্ণকল্পক্ষে । শূন্যে রহে কল্পবৃক্ষ ঈশ্বর ইচ্ছায়। কল্প বৃক্ষ কৃষ্ণুভক্তে কল্পনু করয় ॥ " আদি খণ্ড । ঐশ্বৰ্য্য প্রকাশ হ’ল ভকত সমাজ । রচিল তারক চন্দ্র কবি রসরাজ ॥ . যষ্ঠ—তরঙ্গ । কৃষ্ণপ্রেম রসিকের রসময় দেহে । সে দেহের ছায়া সেই কল্পবৃক্ষে চাহে ॥ মাতা বলে অর্থে আর নাহি প্রয়োজন। জন্মে জন্মে চাই তব যুগল চরণ ॥ শুনি সব ভক্তগণে বলে হরি বোল । অর্থ ত্যাগী প্রেমোন্মত্ত ভাবের পাগল । প্রেম অম্বুরাগে সব ভকত জুটিল। “মতুয়া” বলিয়া দেশে ঘোষণা হইল ॥ মঙ্গল নাটুয়া বিশে পূৰ্ব্ব পারিষদ। ওঢ়ার্ক দিবাসী পরিষদ রামচাদ ॥ ভজরাম চৌধুরীর ছোট ভাই যেই। ঠাকুরের ঐকান্তিক পারিষদ সেই ॥ কুবের বৈরাগী রামকুমার ভকত। প্রভুর ভকত সেই হ’য়েছে ব্যকত। গোবিন্দ মতুয়া আর স্বরূপ চৌধুরী। প্রেমাবেশে ভাবে মেতে বলে হরি হরি ॥ চূড়ামণি বুধই বৈরাগী দুই ভাই । হরিচাদ পেয়ে আনন্দের সীমা নাই । জগদ্বন্ধু বলে ডাক ছাড়িত যখন। সুমেরুর চুড়া যেন হইত পতন। মঙ্গল যখন হরিকীৰ্ত্তন করিত। সম্মুখেতে মহাপ্রভু বসিয়া থাকিত ॥ মঙ্গলের নাশ! আগ্রে কফ বাহিরিত । প্রেমে অশ্রুপূর্ণ হ’য়ে বক্ষ ভেসে যেত ॥ ক্ষণে দিত গড়াগড়ি ক্ষণে উঠে বসে। ক্ষণে নেচে ভেসে যেত প্রেমসিন্ধু রসে ॥ ক্ষণে বীর অবতার ক্ষণেক বিমর্ষ। উত্তরাক্ষ রোদতি বিকট ভঙ্গি হাস্ত ॥ গাইতে গাইতে শ্লেষ্মা উঠিত মুখেতে ॥ ঘন মুখ ফিরাইত ডা’ন বাম ভিতে ॥ উৰ্দ্ধ অধঃ মুখ বাকি করতালি দেয়। বালকেতে অগ্নিদও যেমন ঘুরায়। 4న,