পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/৭০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আদি খণ্ড : لایه ভাব যেন দীনহীন পথের কাঙ্গাল। . ডাকিতেন কোথা কৃষ্ণ যশোদাদুলাল ৷ হা কৃষ্ণ গোকুলচন্দ্র করুণানিধান । ভক্ত ভাব প্রকাশিত নিজে ভগবান ॥ কতু হরি বলি হরি হইত বিস্মৃতি । কখন ও বদনে হ’ত স্থৰ্য্য সম জ্যোতি ॥ এই ভাবে ওঢ়াকাদি লীলা প্রকাশয়। ঐশ্বর্কের মধ্যে শুধু মাধুর্য্য লুকায়। জ"র্হস্থ প্রশস্ত ধৰ্ম্ম জীবে শিক্ষা দিতে। ভক্তগণ অসুক্ষণ নাহি ছাড়োসঙ্গ । ক্রমে ক্রমে বাড়িতেছে লীলার প্রসঙ্গ । কিছু দিন এক বাড়ী মুখে করি বাসু । ইবৈষ্ণবদাস আর ঐস্বরূপ দাস, * - দুই ভাই পত্নবিলা করিল বসতি । बँटेन्ड३ रन्दनन् ख्छाकानि ब्लडि । ওড্র-কন্দ্ৰ বাস না করিত বহু দিন। _' : একমত্ৰ মাত্র দুই একদিন ॥ ভার সন্ন বাকিতেন ভক্তের আলয় । , বেখানে সেখানে থাকি হরি গুণ গায় ॥ দুহুর্ভেক প্রভু যদি কোথা বসিতেন। বাধিযুক্ত রোগযুক্ত লোক আসিতেন ॥ বার হত রোগমুক্ত মানসি করিয়া। মানসিক মুদ্রা সব দিতেন আনিয়া ॥ সেই মুদ্র ভক্তগণ লইয়া সাদরে। অনিয়া দিতেন লক্ষ্মী মাতার গোচরে ॥ অল্প দিন রহে প্রভু নিজ ভদ্রাসনে। — অধিকাংশ রহে প্ৰভু ভক্তের ভবনে ॥ অল্প সময় থাকে অন্ত ভক্ত ঘরে । == ব্যস্ত যাইতে সে রাউৎখামারে ॥ হরিচাদ চরিত্র-পবিত্র সুধা ভাণ্ড । , কবি কহে শ্ৰবণেতে খণ্ডে যমদণ্ড ॥ রোগের ব্যবস্থা । - পয়ার। " N লোক আসে এভু স্থানে হয়ে রোগযুক্ত । সংকীৰ্ত্তনে গড়ি দিলে রোগ হয় যুক্ত। রোগ জানাইয়া সব বলিত কাতরে। রোগমুক্ত হ’ত প্ৰভু দিলে আজ্ঞা করে । , প্রভু বলিতেন যদি রোগ মুক্তি চাও। যে রোগের বৃদ্ধি যাতে তাই গিয়া খাও। : তিন সন্ধ্যা ধূলা মাথ তুলসীর তলা। জর হ’লে পথ্য দেন তেতুলের গোলা। বেদনু অজীর্ণ বমি কিম্বা অল্প পিত্তে। তেতুল গুলিয়া খায় পিত্তলের পাত্রে ॥ মহারোগে অঙ্গে মাখে গোময় গোমূত্র। কেহব। আরোগ্য পায় প্রভু আজ্ঞামাত্র । রোগ জানাইয়ে যায় মানসা করিয়ে । , মানসিক টাকা দেয় রোগমুক্ত হ’য়ে। মানসা করিত লোকে যার যেই শক্তি । একান্ত মনেতে যার যেই রূপ ভক্তি । মুদ্র। পানে প্রভু নাহি চাহিত ফিরিয়া । উঠে যাইতেন প্ৰভু মে মুদ্রা ফেলিয়া ॥ ভক্তে জিজ্ঞাসিত প্ৰভু কোথা রাপি ধন । প্রভু বলে যার ধন তাহার সদন ॥ ভক্তগণ এই সূর্ব ইঙ্গিত বুঝিয়া । লক্ষ্মীর নিকট ধন দিতেন আনিয়া। পৌযেতে আমন ধান্ত কাটিয়া কাটিয়া। মোচন করিয় ভক্ত দিত পাঠাইয়া ॥ দধিদুগ্ধ ঘৃত নানা বিধ তরকারী। পায়স পিষ্টর্ক চিনি সন্দেশ মিছরী ॥ কমলা কদলী কুল দাড়িম্ব সুন্দর। আম জাম নারিকেল খাদ্য মনোহর । ভক্তগণে দ্রব্য আনে প্রভুর সেবায়। লক্ষ্মীর নিকটে সব আনন্দে যোগায় ॥ কালেতে যখন যে নূতন দ্রব্য পেত। ভক্তগণে এনে তাহা ওঢ়ার্কাদি দিত ॥ কেহ কেহ ল’য়ে যেত আপন বাসরে । নিজগৃহে লইয়া প্রভুর সেবা করে ॥ নূতন আমন ধান্ত হইলে বিপুল । আগ, ধান্ত রাখে কেহ আতপ তণ্ডুল। প্রভুভক্ত সুচরিত্র-যেন শুধু মধু। - কবি কহে কৰ্ণ ভরি পিয় সব সাধু। রামকুমারের অঙ্গে কালসৰ্পাঘাত। পয়ার । এইভাবে হইতেছে কালের হরণ। একদিন শুন সবে দৈব নিৰ্ব্বন্ধন ॥ - - –/